দ. কোরিয়ার ফেরি ক্যাপ্টেনের ৩৬ বছরের কারাদণ্ড

দক্ষিণ কোরিয়ায় ফেরি ডুবে ৩০০শ’রও বেশি যাত্রী নিহত হওয়ার ঘটনায় অবহেলাজনিত অপরাধে দোষী সব্যস্ত হয়ে ৩৬ বছর কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন ফেরিটির ক্যাপ্টেন।

মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়ার একটি আদালত এই শাস্তি ঘোষণা করে। তবে ক্যাপ্টেনের বিরুদ্ধে আনা অনিচ্ছাকৃত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ থেকে নিষ্কৃতি দেয়া হয়।

দুজন আহত সহকর্মী ক্রু’কে সহায়তা না করায় ফেরিটির প্রধান প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে আনা অনিচ্ছাকৃত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ৩০ বছর কারাবাসের সাজা দেয়া হয়েছে।

অবকাশযাপন দ্বীপ জেজুতে যাওয়ার সময় অতিরিক্ত মাল বোঝাই ফেরিটি একটি মোড় ঘোরার সময় ৪শ’রও বেশি যাত্রী নিয়ে সাগরে ডুবে যায়।

যাত্রীদের বেশিরভাগই ছিলো স্কুলের কিশোর বয়সী ছাত্র। ভিডিওফুটেজে দেখা যায়, ক্রুরা যাত্রীদের নিজ নিজ কেবিনে অবস্থানের পরামর্শ দিয়ে নিজেরা জাহাজ ছেড়ে যাচ্ছেন।

এই বিষয়টি দক্ষিণ কোরিয়াজুড়ে ব্যাপক ক্ষোভের জন্ম হয় এবং দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি ওঠে।

জাহাজটির বেঁচে যাওয়া আরো ১৩ জন ক্রুও অবহেলাসহ আরও বিভিন্ন অভিযোগের দায়ে অভিযুক্ত হন। এদের সবাইকে ৫ থেকে ২০ বছর পর্যন্ত কারাবাসের সাজা দেয়া হয়েছে।

এই ফেরি দুর্ঘটনা ছিল কয়েক দশকের মধ্যে দেশটিতে ঘটা সবচেয়ে প্রাণঘাতী দুর্ঘটনা। এই ঘটনার উদ্ধারাভিযানে ব্যর্থতার জন্য দেশটির পার্ক গুয়েন হি’র সরকারকেও ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল।

ফেরিটির ৪৭৬ জন যাত্রী ও ক্রু’র মধ্যে মাত্র ১৭২ জন রক্ষা পেয়েছিলেন। নিহত অথবা এখনো নিখোঁজ বলে চিহ্নিত ৩০৪ জন যাত্রীর মধ্যে ২৫০ জনই স্কুল ছাত্র।

You Might Also Like