ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘হুদহুদ’

গত সোমবারই উত্তর আন্দামান সাগরে একটি ঘূর্ণিবায়ু সৃষ্টি হয়েছিল। এরই মধ্যে চার দফা শক্তি বাড়িয়ে নিম্নচাপ থেকে বুধবার সকাল নাগাদ এটি পুরোদস্তুর ঘূর্ণিঝড় ‘হুদহুদ’-এ পরিণত হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড় ‘হুদহুদ’ উত্তর আন্দামান পেরিয়ে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত চলে এসেছে। ঘূর্ণিঝড়টির গতিমুখ এখনো বাংলাদেশের দিকে নয়, ভারতের ওডিশা ও অন্ধ্র প্রদেশের দিকে মুখ করেই এগোচ্ছে। তবে এটি যেকোনো সময় দিক বদলে বাংলাদেশের দিকেও আসতে পারে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদেরা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ বলছে, বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় ঘূর্ণিঝড় হুদহুদ চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর থেকে যথাক্রমে এক হাজার ৮৫ ও এক হাজার ১৪০ কিলোমিটার এবং কক্সবাজার থেকে ৯৯৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের গতিবেগ ছিল ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা ও ঝোড়ো হাওয়ার বেগে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছিল। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে।

আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান এ ব্যপারে গণমাধ্যমকে বলেন, ঘূর্ণিঝড়টি এখন যত দূরে আছে, তাতে আগামী তিন দিনের আগে এটি উপকূলে আঘাত হানার আশঙ্কা কম। এখন পর্যন্ত এর গতিমুখ ভারতের অন্ধ্র ও ওডিশার দিকে রয়েছে। তবে এ ধরনের ঘূর্ণিঝড় যেকোনো সময় গতিমুখ বদলে ফেলতে পারে। বাংলাদেশে আঘাত হানতে পারে।

বুধবার চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে নৌযানগুলোকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

You Might Also Like