২০৪১ সালের মধ্যে বাল্যবিয়ে নামবে শূন্যের ঘরে

সময় ডেস্কঃ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশে বাল্যবিয়ে নামবে শূন্যের ঘরে, এমনই প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেছেন, ২০১৪ সালে যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত গার্লস সামিটে ২০২১ সালের মধ্যে ১৫ বছরের নিচে বাল্য বিয়েকে শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা, ২০২১ সালের মধ্যে ১৫-১৮ বছর বয়সের মধ্যে সংগঠিত বাল্য বিয়ের হারকে এক-তৃতীয়াংশে নামিয়ে আনা এবং ২০৪১ সালের মধ্যে বাল্য বিয়ে মুক্ত বাংলাদেশ গঠনে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। আমরা দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত নারীদের শিক্ষা অবৈতনিক করেছি। নারী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি ও উপবৃত্তি দেওয়া হচ্ছে। এ সব কার্যক্রমের ফলে কিশোরীদের উল্লেখযোগ্য উন্নতি সাধিত হয়েছে।

সোমবার (১১ জুলাই) ‘বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস’। এ উপলক্ষে রোববার (১০ জুলাই) এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এসব বিষয় তুলে ধরেন।

সুস্থ-সবল জাতি গঠনে পরিবার পরিকল্পনা, মা-শিশু ও প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে দেশজুড়ে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত গড়ে ওঠা সব সেবা-অবকাঠামোসমূহের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্ট সবাইকে আরও নিবেদিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার উল্লেখযোগ্য অংশ কিশোরী। আজকের কিশোরী আগামী দিনের জননী। তাই তাদের সুস্বাস্থ্য, শিক্ষা ও দক্ষতার ওপর দেশের ভবিষ্যৎ সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন অনেকখানি নির্ভর করছে। আমরা সে দিকে নজর দিয়েই কাজ করছি।

জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রূপান্তর করতে পারলেই দেশের সার্বিক উন্নয়ন, এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, এ জন্য সুনাগরিক হিসেবে কিশোরীদের গড়ে তোলার ব্যয়কে আমরা বিনিয়োগ হিসেবে মনে করি।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে ‘বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস ২০১৬’র সার্বিক সাফল্য কামনা করেছেন।