হারল বার্সেলোনা

ইনজুরি কাটিয়ে ফাইনালে ফিরেছিলেন লিওনেল মেসি।

মৌসুমের প্রথম ট্রফিটা একেবারে জানালায় উঁকি দিচ্ছিল।

তবু শিরোপার স্বাদ নেওয়া হলো না মেসির। দুহাত ভরে ট্রফিটা উঁচিয়ে ধরার সুযোগ হলো না তার।

রোববার রাতে স্প্যানিশ সুপার কাপে বার্সেলোনাকে হারিয়ে শিরোপা নিজের করে নিয়েছে অ্যাথলেটিকো বিলবাও।

ম্যাচে বার্সার একের পর এক আক্রমণ প্রতিহত করেছে বিলবাওয়ের রক্ষণ।

বেশ কয়েকটি সহজ সুযোগ নষ্ট করেছেন গ্রিজম্যান-ডেম্বেলে-ডি ইয়ংরা। দূরপাল্লার শটেও লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি মেসি।

যদি কাতালানরাই প্রথম লিড নিতে পেরেছিল, তাও কিনা প্রথমার্ধের ৪০ মিনিটের মাথায়।

মেসির থ্রো থেকে বল নিয়ে গ্রিজম্যানকে পাস দেন ডেম্বেলে।

সেই বলকে সোজা বিলবাওয়ের জালে প্রবেশ করান এ ফরাসি তারকা। বিলবাওয়ের বিপক্ষে টানা আট ম্যাচ পর অবশেষে গোলের দেখা পেলেন গ্রিজম্যান।

তবে গোল উৎসবে ১ মিনিটের বেশি মাততে পারেননি বার্সা সমর্থকরা।

ওই গোলের পরের মিনিটেই সমতায় ফেরান বিলবাওয়ের দি মার্কাস।

১-১ স্কোরলাইনে বিরতিতে যায় দুদল।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমে চমৎকার শুরু করে বিলবাও।

৫৬ মিনিটে রাউল গার্সিয়া বার্সার জালে বল জড়ালেও তা অফসাইডে বাতিল হয়।

৭৭ মিনিটে আবারও কাতালানদের লিড এনে দেন গ্রিজম্যান। এবার জর্ডি আলবার পাস থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন।

২-১ ব্যবধানে শেষ পর্যন্ত এগিয়ে যায় ম্যাচ। জয়ের নেশায় তখন বুদ কাতালানরা।

রেফারির শেষ বাঁশির অপেক্ষায় কোম্যান। ঠিক তখনই আচমকা গোল পরিশোধ করে বিলবাও।

৯০তম মিনিটে গোল করে দলকে ফের সমতায় ফেরান ভিয়ালারবিয়ার।

ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। ২-২ স্কোরলাইনে শুরু হয় লড়াই।

এই লড়াইয়ে সফল হয় বিলবাও। ৯৪ মিনিটে ইনাকি উইলিয়ামসের গোলে লিড পায় বিলবাও। ৩-২ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে যায় তারা।

মূলত এটি ছিল বিলবাওয়ের পক্ষে জয়সূচক গোল। বার্সার কফিনে ঠুকে দেওয়া প্যারেক।

এ গোল আর শোধ করতে পারেনি মেসির দল। ফলে ৩-২ গোলের ব্যবধানে জয় পেয়ে স্প্যানিশ কাপ নিজের করে নিল অ্যাথলেটিকো বিলবাও।