স্ত্রী-ছেলে-মেয়ে হত্যার দায়ে ফাঁসি

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় স্ত্রী, ছেলে ও মেয়েকে হত্যার দায়ে আলমগীর হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এস এম জিল্লুর রহমান এ আদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত পল্লিচিকিৎসক আলমগীর হোসেন পলাতক আছেন।

জানা গেছে, ২০০৮ সালের ২২ জুন পরকীয়ায় বাধায় দেওয়ায় মঠবাড়িয়া উপজেলার পাঠাকাটা গ্রামের আলমগীর হোসেন তার স্ত্রী হাফিজা বেগম (৩৫), ছেলে আশরাফুল (১১) ও মেয়ে জামিলাকে (৩) ঘুমের ওষুধ খাইয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।

পরে রাত ১১টার দিকে আলমগীর তার শ্যালক আবুল বাসারকে ফোন করে জানান- তার বাড়িতে ডাকাতি হয়েছে। ডাকাতরা তার স্ত্রী, ছেলে ও মেয়েকে হত্যা করেছে।

ওই রাতেই আবুল বাসার ঘটনাস্থলে এসে বুঝতে পারে- তার বোন ও ভাগনে-ভাগনিকে হত্যা করা হয়েছে। পরে তিনি মঠবাড়িয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মাহবুবুর রহমান জানান, ২০০৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর আলমগীরকে আসামি করে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। এ মামলায় ২৬ জন সাক্ষ্য দেন।