রাজশাহীতে বখাটের ছোড়া এসিড ঝলসে গেল মাদরাসাছাত্রী

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে মাদরাসাছাত্রী মোসা. সুমা খাতুনকে (১৫) লক্ষ্য করে এসিড নিক্ষেপ করেছে বখাটেরা। এতে তার মুখ ও হাত ঝলসে গেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার পাকড়ী ইউনিয়নের বড় বাউটিয়া নারায়ণপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সুমা ওই গ্রামের সেলিম রেজার মেয়ে। তিনি বাউটিয়া ইসলামিয়া মাদরাসার আলিম প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাতের খাবার খেয়ে চাচির সাথে টেলিভিশন দেখছিলেন সুমা। এসময় বাড়ির পাশ দিয়ে যাওয়া বখাটেরা জানালা দিয়ে এসিড ছুড়ে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নেওয়া হয় সুমাকে।

সুমার বাবা সালাহ উদ্দিন খান বলেন, সুমা বখাটেদের চিনতে পারেনি। এসিড মারার সঙ্গে সঙ্গে তার মুখ ঝলসে গিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। সে এখন যন্ত্রণায় ছটফট করছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি। তবে গত কয়েকদিন থেকে একটি অপরিচিত ফোন নম্বর থেকে বিরক্ত করছিল।

কর্তব্যরত চিকিৎসক আফরোজা নাজনীন জানান, মেয়েটির চোখের নিচ থেকে মুখের অংশ ঝলসে গেছে। বাম হাতেরও বেশকিছু অংশ পুড়ে গেছে।

গোদাগাড়ী মডেল থানার ওসি মো. খাইরুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ না পেলেও এ ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত, তাদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।