যুবলীগে সেলিব্রেটিদের আগমন নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন

যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হচ্ছে আগামী ২৩ নভেম্বর। এই কংগ্রেসের মাধ্যমেই যুবলীগের নতুন নেতৃত্ব আসবে। তবে যুবলীগের নেতৃত্বে কে আসছে না আসছে, তা ছাপিয়ে যুবলীগে অনেক সেলিব্রেটিদের আগমন নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন এবং আলোচনা।

আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে যে, গত ৭ বছরে যুবলীগের যে বদনাম প্রকাশ্যে এসেছে, সেই বদনাম এবং কলংকের কালিমা ঘোচাতে যুবলীগকে ঢেলে সাজানো হবে। তারই অংশ হিসেবে একঝাঁক সেলিব্রেটি যুবলীগে যোগ দেবেন এবং এই কংগ্রেসের মধ্যে দিয়েই নতুন যুবলীগের যাত্রা শুরু হবে।

জানা গেছে যে, নড়াইল থেকে নির্বাচিত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে’র অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার যুবলীগে যোগদান চূড়ান্ত হয়েছে। তিনি যুবলীগে যোগ দেওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছেন।

যুবলীগে আরও যোগ দিচ্ছেন একসময়ের সাড়া জাগানো নায়ক রিয়াজ। চিত্রনায়ক রিয়াজেরও যুবলীগে যোগ দেওয়া চূড়ান্ত প্রায়। এছাড়া শোবিজের একঝাঁক তারকা যুবলীগে আসছেন। বিভিন্ন রকমের ক্রীড়াক্ষেত্রে যারা সফল হয়েছেন, তাদেরও যুবলীগে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে যে, যুবলীগের খোলনলচে পাল্টে ফেলা হবে। সেই অংশ হিসেবেই যুবলীগে এই ধরনের সেলিব্রেটিদেরকে আনার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। কারণ যুবলীগের প্রধান কাজ হলো যুব মানস গঠন, মেধা-মননের মাধ্যমে একটি যুব সংগঠন গড়ে তোলা। যেই যুব সংগঠনটিকে দেখে অন্যেরা আকৃষ্ট হবে। সেই বিবেচনা থেকেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে যারা প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন, যারা তরুণ যুবকদের হৃদয় জয় করেছেন, যারা তরুণদের আদর্শ- তাদেরকে যুবলীগে নেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হযেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে যে, এবার যুবলীগের নেতৃত্বে হয়তো তারা এবার না আসলেও আগামীদিনের নেতৃত্বের জন্য তাদের গড়ে তোলা হবে। সূত্রমতে, যুবলীগে যেভাবে কমিটি বাণিজ্য হয়েছে, কমিটি বাণিজ্য করে যেভাবে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, অনু্প্রবেশকারীদের ঢোকানো হয়েছে- সেই জঞ্জাল একদিনে সরিয়ে ফেলা সম্ভব নয়। তাই এই কাউন্সিলের মাধ্যমে রাতারাতিভাবে যুবলীগকে পাল্টে ফেলা সম্ভব নয়।

দায়িত্বশীল সূত্রমতে, এক থেকে দুই বছর সময় নিয়ে যুবলীগকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নিয়েছে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক মহল। সেই অংশ হিসেবে যুবলীগের এবারের কাউন্সিলে নতুন এবং পুরনোদের মিশেলে একটি কমিটি গঠন করার সম্ভাবনা রয়েছে। যেই কমিটি আগামীদিনের যুবলীগকে নতুন করে গড়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

একাধিক সূত্র বলছে যে, যুবলীগের নেতৃত্বে কে থাকবেন তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে যে, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনি’র ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশকেই যুবলীগের চেয়ারম্যান করার সম্ভাবনাই বেশি, যদি নাটকীয় কোনো পরিবর্তন না হয়। আর সাধারণ সম্পাদক যুবলীগের বর্তমান নেতৃত্ব থেকেই কাউকে বেছে নেওয়া হবে।

যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি যখন গঠন করা হবে, তখন সেই কমিটিতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত তরুণ-যুবকদেরকে নেওয়া হবে যাতে যুবলীগের প্রতি মানুষ আকৃষ্ট হয়। এছাড়াও যুবলীগের কর্মকাণ্ডেরও পরিবর্তন করা হবে। যুবলীগকে মেধা-মননসমৃদ্ধ একটি সংগঠন হিসেবে গড়ে তোলার জন্যই কাজ করা হবে। আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেছেন, আগামী দুইবছরের মধ্যেই যুবলীগের চেহারা পাল্টে যাবে এবং একটি আদর্শিক সংগঠন হিসেবে যুবলীগ আত্মপ্রকাশ করবে।

 

শেখ মারুফকে মাসে ২০ লাখ টাকা দিতেন সেলিম প্রধান

 

লোকমানের দাবি- ক্যাসিনোর জন্য ক্লাব ভাড়া দিলেও অর্থ পাচার করেননি

 

ক্যাসিনোর টাকা সম্রাট দলের জন্য খরচ করতেন : স্ত্রীর দাবি

 

ক্যাসিনো কেলেংকারি নিয়ে যা বললেন আন্দালিব রহমান পার্থ

 

সম্রাটের টাকা যেসব প্রভাবশালীদের পকেটে

 

ক্যাসিনোকাণ্ডে বিসিবি সভাপতি : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বললেন নৈতিকতার অবক্ষয়

You Might Also Like