‘যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে আইএস’র বিরুদ্ধে লড়াইয় জয়ী হবে’

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ১৪ ডিসেম্বর সোমবার বলেছেন যে তিনি নিশ্চিত  যে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে কোয়ালিশন, ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী হবে। তিনি আরও বলেন চরমপন্থী গ্রুপ সমর্থন হারাচ্ছে এবং তাদের নেতারা লুকিয়ে থাকার স্থান আর নেই।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন তথাকথিত ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র আরো কঠোর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

তবে তিনি এটাও স্বীকার করেছেন আইএসবিরোধী যুদ্ধ প্রতিনিয়তই কঠিন হয়ে পড়ছে এবং অভিযান আরও উন্নত করা প্রয়োজন বলেও মনে করেন তিনি।

সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়ায় বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনা এবং প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর আইএসবিরোধী অভিযান আরও নতুন কৌশলে চালানো দরকার বলে মনে করেন প্রেসিডেন্ট ওবামা।

পেন্টাগনে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ওবামা বলেন ইসলামিক স্টেট জংগিদের বিরুদ্ধে অতীতের অন্য যে কোন সময়ের তুলনায় আরো কঠিন হামলা চালানো হচ্ছে। নভেম্বর মাসেই আইএস বিরোধী আক্রমণ অনেক গুণে বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

মি: ওবামা বলছেন, “আইএস এর ওপর যুক্তরাষ্ট্র কঠিন থেকে কঠিনতর হামলা চালাচ্ছে। অস্ত্রশস্ত্র, ড্রোন, বিমান ইত্যাদি দিয়ে আইএস এর ওপর আক্রমণের পরিমাণও আগের তুলনায় বাড়িয়ে দিয়েছে। গত বছর আইএসবিরোধী অভিযান শুরু হবার পর থেকে আজ পর্যন্ত জঙ্গীদের দমাতে প্রায় নয় হাজারের মতো বিমান হামলা চালানো হয়েছে”।

তিনি কড়া বার্তা দিয়ে বলেছেন ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠীর নেতারা কেউ আর লুকোতে পারবেনা। তারাই পরবর্তী টার্গেট এমন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

মি: ওবামা বলেন, ইরাকে আইএস তার কবজায় থাকা ৪০ শতাংশ এলাকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে।

আইএস এই গ্রীষ্মের পর থেকে কোন সফল হামলা চালাতে পারেনি বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সম্প্রতি বেশক’টি তেলের খনিতে হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদেশগুলো।

এই তেলের খনিগুলোই আইএসের মুল অর্থনৈতিক ভিত্তি।

সামনে আরও কঠিন লড়াই করতে হবে বলেও মনে করেন মি: ওবামা।

সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়ার সান বার্নার্ডিনোতে বন্দুকধারীদের হামলা এবং প্যারিসে হামলার ঘটনা আইএস প্রভাবিত বলে মনে করা হচ্ছে। সেই প্রেক্ষিতে হামলার গতি আরো বাড়ানো হয়েছে।