ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে সতর্কাবস্থা জারি

ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আগামীকাল শুক্রবার যে কোন ধরনের নাশকতা ঠেকাতে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে সতর্কতা জারি করেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ)। বৃহস্পতিবার রাত থেকে এই সতর্কাবস্থা জারি করা হয়।

জানা গেছে, বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীদের ওপর কঠোর নজরদারি রাখা হয়েছে। বেনাপোলের বিভিন্ন সীমান্তের ওপারে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিশেষ করে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী কেউ যাতে সীমান্ত টপকে ভারতে অনুপ্রবেশ করতে না পারে সে জন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। ভারতের স্বাধীনতা দিবসে জঙ্গি হামলাসহ যাতে কোনো ধরনের নাশকতা ঘটতে না পারে সে কারণে সীমান্ত এলাকা জুড়ে নিরাপত্তা বলয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে।

সীমান্ত এলাকা ছাড়াও ভারতের কলকাতা ও ২৪ পরগণা এলাকার ব্যস্ততম রেল স্টেশন, বাস স্টেশন ও সরকারি গুরুত্বপূর্ণ ভবনে সাদা পোশাকে পুলিশের গোয়েন্দা নজরদারি জোরদার করা হয়েছে। বিশেষ করে বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীদের ভারতে যাওয়ার সময় ইমগ্রেশনে ছবি তোলা ও সতর্কতার সাথে তাদের পাসপোর্ট পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আক্তার হোসেন জানান, বেনাপোল ইমগ্রেশনকেও সতর্কবস্থায় রাখা হয়েছে। পাসপোর্ট যাত্রীদের ওপর নজরদারি বাড়ানো হয়েছে এবং কোন পাসপোর্ট যাত্রীর ছবি তোলা ছাড়া এক্সিট দেয়া হচ্ছে না।

বেনাপোল চেকপোস্ট বিজিবির ক্যাম্পের ইনচার্জ হাফিজুর রহমান জানান, বিএসেএফের পাশাপাশি বেনাপোল চেকপোস্টের বিভিন্ন পয়েন্টে বিজিবির নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

২৬ বিজিবির ব্যাটালিয়ন কমান্ডার লে. কর্নেল মতিউর রহমান জানান ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। এদিন সীমান্তে এবং দেশের অভ্যন্তরে যাতে কোন নাশকতা সৃষ্টি না হয় সেদিকে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। তাছাড়া অবৈধ অনুপ্রবেশকারী যাতে সীমান্ত টপকিয়ে ভারত এবং বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে তার জন্য বেনাপোল সীমান্তে নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।