ভারতে প্রেমিকের সঙ্গে কথা বলতে বলতে উপস্থাপিকার আত্মহত্যা

ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের হায়দরাবাদের সেকেন্দারাবাদ এলাকায় প্রেমিকের সঙ্গে ভিডিও চ্যাট করতে করতে আত্মহত্যা করেছেন কে. নিরোশা নামের এক যুবতী।

গতকাল বুধবার সিন্ধি কলোনির পিজি হোস্টেল থেকে ওই যুবতীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ডেকান ক্রনিকল জানিয়েছে, ২৩ বছর বয়সী যুবতী তেলেগু ভাষার সংগীত চ্যানেল জেমিনি মিউজিক টিভিতে উপস্থাপক হিসেবে কাজ করতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, আত্মহত্যার সময় স্কাইপ ব্যবহার করে নিজের কানাডাপ্রবাসী প্রেমিক ঋত্বিকের সঙ্গে কথা বলছিলেন নিরোশা। কথা বলার একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নিরোশা আত্মহত্যার হুমকি দেন। এর পরই তিনি ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে নিজের ওড়না দিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। আত্মহত্যার সময়ও স্কাইপ চালু ছিল।

কানাডায় বসে নিরোশাকে আত্মহত্যায় বাধা দিতে পারছিলেন না ঋত্বিক। দ্রুত তিনি নিরোশার আত্মীস্বজনদের ফোন করে সাহায্য চান।

পরে সেই আত্মীয়দের একজনই মাঝরাতে পুলিশকে ফোন করে সাহায্য চান। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পিজি হোস্টেলে নিরোশার ঘর থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিরোশার বাবা মা ছিত্তোর জেলার সোমালা মান্ডালে বসবাস করেন। ঋত্বিকের সঙ্গে ভিডিও চ্যাট শুরু আগে মা-বাবার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন নিরোশা। সেটিই ছিল নিজের পরিবারের সাথে তাঁর শেষ যোগাযোগ।

নিরোশার আত্মহত্যার ঘটনায় ইন্ডিয়ান ক্রিমিনাল অ্যাক্টের ১৭৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।