বেনাপোলে ফেনসিডিলসহ স্কুলশিক্ষক আটক

করোনার ভয়াবহতার মধ্যেও ফেনসিডিল পাচারে পিছিয়ে নেই সমাজের একটা শ্রেণি। অনেকেই নেমে পড়েছে লাভজনক মাদক ব্যবসায়।

বেনাপোল থেকে এক বোতল ফেনসিডিল বরিশালে নিতে পারলেই মুনাফা ৫০০ টাকা। আর তাই তো ফেনসিডিল নিতে বরিশাল থেকে বেনাপোলে মোটরসাইকেল হাঁকিয়ে ছুটে এসেছেন সমাজের মানুষ গড়ার কারিকর এক স্কুলশিক্ষক।

ধাওয়া খেয়ে ৫ জন পালিয়ে গেলেও বিজিবির চোখ ফাঁকি দিতে পারেনি বরিশাল শহরের নামীদামী সরকারি স্কুলের এক শিক্ষক।

যশোর ৪৯ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা জানান, সীমান্তবর্তী পুটখালী সড়ক দিয়ে বেনাপোল বাজারে হয়ে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল বরিশালে পাচার করা হচ্ছে গোয়েন্দা সূত্রে খবর পায় বিজিবি। পরে সোমবার দুপুরে বিজিবির টহল দল শিকড়ি বটতলা নামক স্থানে এক মোটরসাইকেল আরোহীকে থামিয়ে তার কাছে থাকা স্কুল ব্যাগ তল্লাশি করে। ওই ব্যাগে ৮০ বোতল ফেনসিডিল পাওয়া যায়। এ সময় বিজিবি তাকে আটক করে।

আটককৃত ব্যক্তির নাম নজরুল ইসলাম সুমন। তিনি বরিশাল সরকারি মডেল স্কুল এবং কলেজের সহকারী শিক্ষক। তাকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে লে. কর্নেল সেলিম রেজা জানান।

আটক নজরুল ইসলাম সুমন সাংবাদিকদের বলেন, তারা ৬ জন বরিশাল থেকে মোটরসাইকেলযোগে বেনাপোলে ফেনসিডিল নিতে এসেছিল। ইতিপূর্বে অনেকবার তারা ফেনসিডিল নিয়ে গেছে একইভাবে। গোটা বরিশাল শহরের মাদকের নিয়ন্ত্রণ তাদের হাতে।

সুমন জানায়, তাদের সঙ্গে ছিল বরিশালের সদর হাসপাতালের ডাক্তার মিঠু, উত্তরা ব্যাংক কর্মকর্তা ডোনা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বুলেট এবং মনির। তারা বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে পালিয়ে গেছে।

You Might Also Like