বিয়ের আসরে কনেকে রেখে পালাল বর

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে এক ছাত্রীর (১৫) বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে বিয়ের আসর থেকে কনেকে রেখে পালিয়ে যান বর। এ সময় জনসমাগম করার অপরাধে অর্থদণ্ড করা হয় কনের মাকে।

বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মহতাপুর গ্রামের মৌলভীসাহেবের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. রুহুল আমিন ও আসাদুজ্জামান রনি।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যায় মহতাপুর গ্রামের বাসিন্দা ও নোয়াখালী মডেল কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রীর (১৫) বাড়িতে তার বিয়ের আয়োজন করা হয়। এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ির পেছন দিয়ে দিয়ে বিয়ের আসর থেকে বর ও মেয়ের বাবা পালিয়ে যান। বিয়েবাড়িতে যত্রতত্র খাবার ও চেয়ার টেবিল পড়ে থাকতে দেখা যায়।

জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান রনি জানান, বিয়ের আসর থেকে মেয়ের বাবা ও বর পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি।

তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ওই ছাত্রীর বয়স ১৮ হওয়ার আগ পর্যন্ত বিয়ে দেবে না এ মর্মে তার মায়ের কাছ থেকে মুচলেকা নেয়া হয়েছে।

এ ছাড়া বিয়ের আয়োজন করে লোকজনের সমাগম করার অপরাধে মেয়ের মাকে অর্থদণ্ড করা হয়েছে।