‘বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তিকারীরা রেহাই পাবে না’

রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিয‍ুদ্ধ নিয়ে কটূক্তিকারীরা কুলাঙ্গার। এরা কেউ রেহাই পাবে না। জনগণ তাদের বিচার করবে।

শনিবার (২৭ ডিসেম্বর) বিকেলে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় স্থানীয় জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা, উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত গণতন্ত্রের কথা বলে দেশের বিরুদ্ধে ষড়ষন্ত্র করছে। এ ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় তিনি আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন শেষ করতে নেতাদের নির্দেশ দেন।

মতবিনিময়কালে আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, নারী সংসদ সদস্য উম্মে রাজিয়া কাজল, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আকতার, বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য শেখ কবির হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সিকদার নুর মোহাম্মদ দুলু, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী এমদাদুল হক, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু, পৌর মেয়র রেজাউল হক সিকদার (রাজু), টুঙ্গীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আব্দুল হালিম, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, পৌর মেয়র সরদার ইলিয়াস হোসেন, কোটালীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান হাওলাদারসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেত‍ারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছান। ১২টা ৪০ মিনিটে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে ফুল ‍দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

পরে তিনি ছোট বোন শেখ রেহানা, চাচাতো ভাই শেখ হেলাল উদ্দিন ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সেখানে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করেন।

সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সের বঙ্গবন্ধু ভবনে মধ্যাহ্ন বিরতি, নামাজ ও বিশ্রাম শেষে বিকেল সাড়ে ৪টায় টুঙ্গীপাড়া থেকে হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হন।

You Might Also Like