ফারুকী হত্যায় ৬ টিভি উপস্থাপকের বিরুদ্ধে মামলা

রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে নিজ বাসায় আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত নেতা ও টেলিভিশন উপস্থাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ফারুকী হত্যার ঘটনায় চারটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের ছয়জন উপস্থাপককে আসামি করে পিটিশন মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের পক্ষে ঢাকার সিএমএম আদালতে এ সংক্রান্ত একটি পিটিশন মামলা দায়ের করেন।

এই মামলার আসামিরা হলেন— এটিএন বাংলা ও এনটিভির ইসলামী আনুষ্ঠানের উপস্থাপক তারেক মনোয়ার, কামাল উদ্দিন জাফরী, দিগন্ত ও পিস টিভির উপস্থাপক কাজী ইব্রাহিম, এটিএন বাংলার উপস্থাপক আরকানুল্লাহ হারুনী, আরটিভি ও রেডিও টুডের ইসলামী আনুষ্ঠানের উপস্থাপক খালেদ সাইফুলল্লাহ, বাংলা ভিশনের উপস্থাপক মুখতার আহমদ।

এই ছয়জনকে ফারুকী হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে তুষারের আর্জিতে।

মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূর তার আবেদন শুনে বিষয়টি আদেশের অপেক্ষায় রেখেছেন।

বৃহস্পতিবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূরের আদালতে বাদীর জবানবন্দী গ্রহণ করা হয়। এ সময় তার পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন মিয়াসহ অন্যরা শেরেবাংলানগর থানায় দায়ের করা মামলাটিতে ৩৯৬ ধারার সঙ্গে দণ্ডবিধির ৩০২/১২০/১০৯/৩৪ ধারা যোগ করার দাবি জানান।

মামলার আবেদন ও আইনজীবীদের বক্তব্যে এক ধরনের বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। এ সময় বিচারক বলেন, একটি মামলার তদন্ত চলাকালে কোনো ধারা যোগ করার নির্দেশ দান মামলার স্বাভাবিক কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করবে। বিচারক আরো বলেন, আইনে এমনটি করার কোনো সুযোগ নেই। শেষে বিচারক নথি পর্যালোচনা করে পরে আদেশ দেবেন বলে জানান।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার রাতে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে নিজ বাসায় খুন হন চ্যানেল আইয়ের ইসলামী অনুষ্ঠানের উপস্থাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ফারুকী। এ ঘটনায় রাজধানীর শেরে বাংলা নগর থানায় দণ্ডবিধির ৩৯৬ ধারায় (ডাকাতিসহ খুন) একটি মামলা দায়ের করা হয়। পরে পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এটাকে হত্যা মামলা হিসেবে গ্রহণের আবেদন জানানো হয়।