ফাইজার টিকা নিয়ে বলকান দ্বিধাবিভক্ত

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের মানুষের মধ্যে অবিশ্বাস চরমে পৌঁছেছে। এই অবিশ্বাস সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে সরকারি কর্মকর্তা এমনকি সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং অনেক ডাক্তারের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়েছে। সাম্প্রতিক এক জরিপে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

যেসব দেশে টিকাদান কর্মসূচি মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে তার মধ্যে রয়েছে- চেক প্রজাতন্ত্র, সার্বিয়া, বসনিয়া, রোমানিয়া এবং বুলগেরিয়া। এসব দেশের মানুষের মধ্যে এই ধারণা ছড়িয়ে পড়েছে যে, ইউরোপ ও আমেরিকার কোম্পানিগুলোর তৈরি করা ভ্যাকসিনের মাধ্যমে দেহে অতি সূক্ষ্ম সিলিকন কণা বা মাইক্রোচিপস ঢুকিয়ে দেয়া হচ্ছে। যে সমস্ত কোম্পানির মাধ্যমে টিকা প্রদান করা হচ্ছে তারা এরইমধ্যে দক্ষিণ পূর্ব ইউরোপে তাদের টিকাদান কর্মসূচির গতি দিতে বাধ্য হয়েছে।

বলকান অঞ্চলে পরিচালিত সাম্প্রতিক এক জরিপ ফলাফলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলা হয়েছে- এ অঞ্চলের একটি বিরাট সংখ্যক মানুষ ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে রাজি নন। ইউরোপের অন্য যে কোন এলাকার চেয়ে এই অঞ্চলে টিকা গ্রহণের ব্যাপারে অনীহা বেশি।

সার্বিয়ার জনগণের মধ্যে যেমন ফাইজার টিকা নিয়ে দ্বিধাবিভক্তি রয়েছে তেমনি সরকারও দ্বিধাবিভক্ত। তাদের প্রশ্ন- আমেরিকার তৈরি ফাইজার-বায়োনটেকের ভ্যাকসিন গ্রহণ করা হবে নাকি রাশিয়ার স্পুৎনিক ভি ভ্যাকসিন গ্রহণ করা হবে।

ফাইজার-বায়োনটেকের টিকা গ্রহণ করার পর এরইমধ্যে নরওয়েতে ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির ডাক্তাররা এই টিকা গ্রহণের ব্যাপারে সতর্ক হওয়ার কথা বলেছেন।#

পার্সটুডে