পেলের রেকর্ডে ভাগ বসালেন মেসি

ক্যাম্প ন্যুয়ে শনিবার বিকালে উত্তেজনাময় এক ম্যাচ উপভোগ করেছে ফুটবলবিশ্ব।

আক্রমণ-পাল্টাআক্রমণ, লালকার্ড বদলে হলুদকার্ড, লিওনেল মেসির পেনাল্টি মিসের পর তার কিংবদন্তি পেলেকে ছোঁয়ার রেকর্ড- কী হয়নি ওই ম্যাচে!

এদিন লা লিগায় বার্সেলোনার আতিথ্য গ্রহণ করেছিল ভ্যালেন্সিয়া।

আর ঘরের মাঠে পয়েন্ট হাতছাড়া হয়েছে মেসিদের। ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছে। এদিন পেনাল্টি মিস করলেও চমৎকার এক হেডে গোল পেয়েছেন মেসি।

ম্যাচ শুরুর প্রথম ২০ মিনিটে ৮০ শতাংশ বল বার্সার দখলে ছিল। কিন্তু ভ্যালেন্সিয়ার রক্ষণভাগের দেয়াল ভাঙতে পারেনি। উল্টো ২৯ মিনিটে গোল হজম করেন কোম্যানের শিষ্যরা।

স্প্যানিশ মিডফিল্ডার সোলেরের কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে মাথা ছোঁয়ান ফরাসি ডিফেন্ডার মুকতার দিয়াখাবি। পোস্ট ঘেঁষে বল জড়ায় বার্সার জালে।

বিরতির আগের মিনিটে বিতর্কিত এক পেনাল্টি পায় বার্সেলোনা।

ম্যাচের ৪৩তম মিনিটে মেসির দারুণ পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন ফরাসি ফরোয়ার্ড আঁতোয়া গ্রিজম্যান। তাকে ফাউল করায় স্প্যানিশ ডিফেন্ডার হোসে গায়াকে লালকার্ড দেখান রেফারি। পেনাল্টি পায় বার্সেলোনা।

কিন্তু ভিএআরের সাহায্যে দেখা যায়, গ্রিজম্যানের কাঁধে হাত রেখেছিলেন গায়া। কিন্তু ধাক্কা দেননি তিনি। রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তে বাড়তি উত্তেজনা ছড়ায়। গায়াকে লালকার্ড বাতিল করে হলুদকার্ড দেখান রেফারি। তবে পেনাল্টি বাতিল করেননি তিনি।

আর এমন বিতর্কিত পেনাল্টি পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি লিওনেল মেসি।

স্পটকিক থেকে মেসির নেয়া শট দারুণভাবে ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক হাউমে ডমেনেক।

তবে ৪৯ মিনিটে আলবার ক্রস থেকে গোলমুখে বল পেয়ে যান মেসি। এবার ভুল করেননি আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। হেডে ফাঁকা জালে বল পাঠান বার্সেলোনা অধিনায়ক।

বার্সেলোনার হয়ে সব মিলিয়ে মেসির এটি ৬৪৩তম গোল। এই গোলের পর এক ক্লাবের হয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডে ফুটবলের কালোমানিক পেলের পাশে নিজের নাম বসলেন মেসি।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৩তম মিনিটে আরাহোর দারুণ এক গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা।

ডি-বক্সের মুখ থেকে অসাধারণ বাইসাইকেল কিকে বার্সেলোনার হয়ে প্রথম গোলটি করেন ২১ বছর বয়সী উরুগুয়ের এ সেন্টার ব্যাক।

এর পর ১৫ মিনিট ধরে আক্রমণ-পাল্টাআক্রমণে জমজমাট লড়াই দেখেন ফুটবলপ্রেমীরা।

আর এই লড়াইয়ে সফল হয় ভ্যালেন্সিয়া। ৬৯তম মিনিটে বাঁ দিকের বাইলাইন থেকে গায়ার কাটব্যাকে বার্সার বক্সের মুখে বল পান গোমেস।

গোলরক্ষক স্টেগানকে পরাস্ত করে দলকে সমতায় ফেরান তিনি।

বাকিটা সময় মেসি, কুতিনহো আক্রমণের ঝড় তুললেও গোলের দেখা পায়নি বার্সা।

রেফারির শেষ বাঁশিতে ২-২ ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে দুদল।

ফলে লা লিগায় টানা দুই জয়ের পর আবারও পয়েন্ট হারাল কাতালানের দলটি। ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে এই নিয়ে টানা দুই ম্যাচ জয়শূন্য রইলেন তারা।

গত জানুয়ারিতে সবশেষ দেখায় ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে ২-০ গোলে হেরেছিল কাতালান ক্লাবটি।

আসরে ১৩ ম্যাচে ৬ জয়, তিন ড্র ও চার হারে ২১ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে আছে বার্সেলোনা।

এক ম্যাচ বেশি খেলে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে ১২তম স্থানে আছে ভ্যালেন্সিয়া।