নাটোরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে ধর্ষণ

প্রেমের ফাঁদে ফেলে নাটোরের সিংড়ায় এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিয়ের দাবি করায় শারিরীকভাবে নির্যাতনও করা হয়েছে ওই তরুণীকে।

শুক্রবার সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, ওই তরুণী নারী ওয়ার্ডের মেঝেতে শুয়ে কাতরাচ্ছেন।

এদিকে, অভিযুক্ত জিহাদকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে সিংড়া থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তার জিহাদ উপজেলার তেরোবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল আলীমের ছেলে ও সিংড়া বাজারের কসমেটিক ব্যবসায়ী।

সিংড়া থানা পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, প্রেমের ফাঁদে ফেলে সিংড়ার ওই তরুণীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে প্রতিবেশী যুবক জিহাদ। বুধবার জিহাদের দোকানে গিয়ে বিয়ের প্রস্তাব দেন ওই তরুণী। এতে জিহাদ রাগান্বিত হয়ে তাকে বেধরক মারপিট করে পালিয়ে যায়।

আহত তরুণী অভিযোগ করে বলেন, ‘বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তাকে শুধু ব্যবহার করা হয়েছে। বিয়ের জন্য মোটা অঙ্কের টাকাও দাবি করেছে জিহাদ। আমি একটা মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে, এতগুলো টাকা কই পাবো।’

নারী ওয়ার্ডের সিনিয়র নার্স মনোয়ারা খাতুন বলেন, ওই তরুণীর শরীরে মারপিটের দাগ রয়েছে।

সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. ইসরাত জাহান জানান, আহত তরুণীকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

মামলার তদন্তকারী সিংড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহবুব হোসেন জানান, এবিষয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এখন অভিযোগকারী তরুণীর ডাক্তারি রিপোর্ট হাতে পেলেই প্রয়োজনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

You Might Also Like