টাইমস স্কয়ারে বিলবোর্ডে ট্রাম্পবিরোধী বিজ্ঞাপন চিত্র

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে দুটি বিলবোর্ডে ট্রাম্পবিরোধী বিজ্ঞাপন চিত্র প্রদর্শন করেছে লিংকন প্রকল্প। এ জন্য লিংকন প্রকল্পের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়েছেন ট্রাম্পকন্যা ইভানকা ও তাঁর স্বামী জার্ড কুশনার।

মার্কিন নির্বাচনের ঠিক আগে ট্রাম্পবিরোধী গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে বিজ্ঞাপন চিত্রটি প্রদর্শন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ইভানকা ও কুশনার। এ নিয়ে ইভানকা ও কুশনারের পক্ষ থেকে মামলার হুমকি দিয়ে উকিল নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশে বলা হয়েছে, এমন বিজ্ঞাপন চিত্রে তাঁদের ভাবমূর্তির ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। অবিলম্বে বিলবোর্ডটি অপসারণ করা না হলে মামলা করা হবে। ‘মিথ্যা, দূষিত ও মানহানিকর’ বিলবোর্ড নামানোর দাবিও জানান তাঁরা।

বিলবোর্ডের ওই বিজ্ঞাপনে দেখা যায়, করোনায় সংক্রমিত হয়ে নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রের মৃত্যু নিয়ে হাসছেন ইভানকা ট্রাম্প। পাশে তাঁর স্বামী জার্ড কুশনারও দিচ্ছেন বিদ্রুপের হাসি, খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

এ দম্পতির আইনজীবী মার্ক কাসোভিটস হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘যদি টাইমস স্কয়ারে বিজ্ঞাপনগুলো অব্যাহত থাকে, তবে আমরা ক্ষতিপূরণ এবং শাস্তিমূলক ক্ষয়ক্ষতির জন্য মামলা করব।’

লিংকন প্রকল্পটি একটি বিদ্রোহী সংস্থা। এ প্রকল্পটি আমেরিকান রাজনৈতিক অ্যাকশন কমিটি যা ২০১৯-এর শেষদিকে বেশ কয়েকজন প্রাক্তন রিপাবলিকান দ্বারা গঠিত হয়েছিল। কমিটির লক্ষ্য হলো- ২০২০ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পুনর্নির্বাচন রোধ করা। যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে রিপাবলিকানদের যারা পুনর্নির্বাচনের দৌড়ে এগিয়ে তাঁদের পরাজিত করা।

লিংকন প্রকল্পটি মূলত রক্ষণশীলদের সমন্বয়ে গঠিত, আগামী মাসের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পরাস্ত করতে চাচ্ছেন, জর্জ কনওয়ে, ট্রাম্পের প্রাক্তন প্রচার ব্যবস্থাপকের আইনজীবী এবং সিনিয়র কাউন্সেলর কেলিয়েন কনওয়ে।

লিঙ্কন প্রজেক্টের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিলবোর্ডটি টাইমস স্কয়ারে থাকবে। ইভানকা ট্রাম্প ও জার্ড কুশনাররা যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের প্রতি বিদ্রুপ এবং নিষ্ঠুরতা দেখিয়ে আসছেন। বিলবোর্ডে জনগণকে এসব কথাই স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয়েছে।