জাতিসংঘ দিবস আজ

জাতিসংঘ দিবস আজ। ১৯৪৫ সালের এই দিনে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মপ্রকাশ করে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘ দিবস উপলক্ষে এক ভিডিও বার্তায় জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেন, বৈষম্য ও বাধা সত্ত্বেও আমরা হাল ছেড়ে দেই না। কারণ আমরা বৈষম্য হ্রাস করতে জানি। আমাদের আশা, বিশ্বজুড়ে মানুষের সুযোগ এবং শান্তি বৃদ্ধি পাবে।

জাতিসংঘ মহাসচিব জলবায়ু কর্মসূচী বাস্তবায়নের জন্য সংগঠনের দৃঢ়তা, মানবাধিকারের জন্য সংগ্রাম এবং শান্তি উপার্জনের জন্য পদক্ষেপের ক্ষেত্রে দৃঢ় সংকল্পের কথা ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, জাতিসংঘ দিবসে আমাদের অঙ্গীকার হলো ভাঙা বিশ্বাস পুনর্নির্মাণ করা, আমাদের গ্রহ নিরাপদ করা, জাতিসংঘ হিসেবে এক থাকার এবং সবার মর্যাদা অটুট রাখার।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে বিশ্বের শীর্ষ ক্ষমতাধর দেশগুলোর প্রায় চার বছরের চেষ্টা ও ধারাবাহিক আলোচনার পর ১৯৪৫ সালের এই দিনে প্রাথমিকভাবে ৪৬টি সদস্য দেশ জাতিসংঘ সনদকে অনুসমর্থন দেয়। ১৯৪৭ সালের জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ২৪ অক্টোবরকে জাতিসংঘ দিবস হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়।

সাধারণ পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুসারে জাতিসংঘ সনদ অনুমোদনের দিনে ১৯৪৮ সালে এ দিবস পালনের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়। সে থেকে জাতিসংঘ দিবস ২৪ অক্টোবর বিশ্বের সকল স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রে উদযাপিত হয়। দিবসটিতে জাতিসংঘের বৈশ্বিক অর্জন ও উদ্দেশ্যকে জনসমক্ষে তুলে ধরা হয়।

১৯৭১ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ জাতিসংঘের সদস্যভূক্ত দেশসমূহে দিবসটিকে ছুটির দিন হিসেবে পালনের জন্য সুপারিশ করে।

জাতিসংঘ দিবসের পাশাপাশি একই দিনে বিশ্ব উন্নয়ন তথ্য দিবস পালন করা হয়। জাতিসংঘের উদ্যোগে ১৯৭২ সাল থেকে প্রতি বছরের ২৪ অক্টোবর এ দিনটি বৈশ্বিকভাবে পালিত হয়।

বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে যথাযোগ্য মর্যাদা ও নানা আয়োজনে আজ দিবসটি পালিত হচ্ছে।