কেরানীগঞ্জে গৃহবধূকে জবাই করে হত্যা

কেরানীগঞ্জের জিয়ানগর এলাকায় এক গৃহবধূকে জবাই করে হত্যা করেছে দুবৃত্তরা। শনিবার রাতে ফাতেমা (২৬) নামের ওই গৃহবধূকে হত্যা করা হয়। উপজেলার শাক্তা উইনিয়নের জিয়ানগর এলাকার নিজ বাসা থেকে নিহতের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ।

নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিহত ফাতেমা ঢাকার কামরাঙ্গীচর থানার চর আলীনগর এলাকার মো. বাবুল মিয়ার বড় মেয়ে। নিহতের স্বামী আব্দুস সামাদ কেরানীগঞ্জের খোলামোড়া বাজারে ডিমের ব্যবসা করেন।

নিহতের স্বজনরা জানায়, ১৫ বছর আগে কেরানীগঞ্জের জিয়ানগর এলাকার মৃত মো. সওকত আলীর ছেলে আব্দুল সামাদের সঙ্গে ফাতেমার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ফাতেমা কেরানীগঞ্জ মডেল থানার জিয়ানগর এলাকায় স্বামী সন্তান নিয়ে নিজ বাসায় বসবাস করতেন। হঠাৎ গতকাল রাতে ফাতেমার স্বামী বাড়ি ফিরে স্ত্রীর গলাকাটা লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার করে উঠলে এলাকাবাসী বিষয়টি জানতে পারে।

নিহতের স্বামী আব্দুল সামাদ বলেন, ছেলে আবু বক্কর মাদরায় থাকার কারণে আমার স্ত্রীকে সকালে বাসায় একা রেখে আমি ব্যবসার কাজে খোলামোড়া বাজারে যাই। বাসায় ফেরার আগে অনেক বার ফোন দিয়েও তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি। এরপর রাতে বাসায় ফিরে দেখি আমার স্ত্রীর গলাকাটা মরদেহ ঘরের মেঝেতে পড়ে আছে।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মাইনুল ইসলাম পিপিএম বলেন, হত্যার ঘটনাটি সত্য। এর সুষ্ঠ তদন্ত চলছে। দ্রুত হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে।

You Might Also Like