করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কারের গুজব, বাবা-ছেলেকে দণ্ড

করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক তৈরি করেছেন এমন গুজব ছড়ানোয় বাবা-ছেলেকে দণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- নান্দাইলের খামারগাও গ্রামের মো. শাহীন মিয়া ও তার ছেলে মো. জসিম উদ্দিন।

শুক্রবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুর রহিম সুজন ভ্রাম্যমাণ আদালতে শাহীনকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ছেলে জসিম উদ্দিনকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

স্থানীয় আবুল হাসেম জানান, শুক্রবার (২৭ মার্চ) মসজিদে জুমার নামাজের সময় শাহীন তার তৈরি করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক সম্পর্কে মুসুল্লিদের জানান।

মুসুল্লিদের শাহীন জানান, ১৫ দিন আগে দিনের বেলা স্বপ্নের মধ্যে তিনি করোনাভাইরাসের ওষুধ তৈরির ফর্মুলা জানতে পারেন। বিভিন্ন স্থান থেকে ওষুধ তৈরির প্রয়োজনীয় কাঁচামাল সংগ্রহ করে তা দিয়ে ওষুধ তৈরি করেছেন তিনি।

শাহীন মিয়ার তৈরি ওষুধের কথা এলাকায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। কেউ একজন বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আনে।

পরে সন্ধ্যার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে শাহীন ও তার ছেলে জসিমকে খুঁজে বের করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুর রহিম সুজন বলেন, ‘শাহীন নামে এক ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য প্রতিষেধক আবিষ্কার করেছেন এমন গুজব ছড়ায়। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সত্যতা পাই। ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে বিষয়টি ভুয়া বলে স্বীকার করেন শাহীন মিয়া ও তার ছেলে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের শাস্তি দেওয়া হয়।’

You Might Also Like