‘ইরানকে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ নিষিদ্ধের আওতায় আনতে হবে’

ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে জোট বেধে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন সম্মিলিতভাবে আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছে, ইরানের জন্য অবশ্যই ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ নিষিদ্ধ করতে হবে। এছাড়া, ভবিষ্যতে ইরানের সঙ্গে পরমাণু ইস্যুতে যে কোন আলোচনার এই তিন পক্ষ অংশীদার হওয়ারও দাবি জানিয়েছে।

গত সপ্তাহে এক ভার্চুয়াল বৈঠকে সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন এবং ইসরাইল এই দাবি জানায়। ওয়াশিংটনভিত্তিক নীতি নির্ধারণী প্রতিষ্ঠান ফাউন্ডেশন ফর ডিফেন্স অব ডেমোক্রেসিস বা এফডিডি এই আলোচনার আয়োজন করে। আলোচনায় অংশ নেন আরব আমিরাত, বাহরাইন ও ইসরাইলের রাষ্ট্রদূত।

এসব রাষ্ট্রদূত দাবি করেন- জো বাইডেনের নেতৃত্বে আমেরিকায় যে নতুন সরকার আসছে তারা তেহরানের বিষয়ে অনেক সুবিধা পাবে এবং একেবারেই সহজভাবে পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসা উচিত হবে না।

ভার্চুয়াল আলোচনায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ আল-ওতাইবা বলেন, ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে যে পরমাণু সমঝোতা সই হয়েছিল তাতে আঞ্চলিক দেশগুলোর কোনো প্রতিনিধিত্ব ছিল না। তিনি আমেরিকাকে কূটনৈতিক প্রতিনিধিদল শক্তিশালী করার পরামর্শ দিয়ে বলেন, আঞ্চলিক মিত্রদেরকেও ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তির ক্ষেত্রে কাছে টানতে হবে। তিনি বলেন, ইরানের সঙ্গে পরমাণু আলোচনায় বসার আগে আরব এবং ইউরোপের মিত্রদের সঙ্গে যদি আমেরিকা ঐক্যবদ্ধ অবস্থান গ্রহণ করে তাহলে অনেক বেশি ভালো ফলাফল আসতে পারে।

বৈঠকে বাহরাইনের রাষ্ট্রদূত বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তার প্রতি সমর্থন ছিল তার দেশের। তিনি বলেন, ইরানের সঙ্গে যদি আমেরিকা পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসে তাহলে অবশ্যই পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলো এবং ইসরাইলের উদ্বেগের বিষয়টি আমেরিকাকে বিবেচনায় নিতে হবে।#

পার্সটুডে