আউয়াল দম্পতির সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল ও তাঁর স্ত্রী লায়লা পারভীনের জ্ঞাত আয়বহির্ভূত স্থাবর, অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোক ও ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় আজ রবিবার (১৭ জানুয়ারি) সকালে ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক আলী আকবর সম্পত্তি ক্রোক ও ব্যাংক হিসাব জব্দের আবেদন করেন। সেই আবেদনের শুনানি নিয়ে আদালত এ আদেশ দেন।

গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল ও তাঁর স্ত্রী লায়লা পারভীনের নামে পৃথক মামলা করে দুদক। দুদকের উপপরিচালক মোহাম্মদ আলী আকবর দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১-এ মামলা দুটি দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, সাবেক সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল অবৈধ উপায়ে ৩৩ কোটি ২৭ লাখ ৮৯ হাজার ৭৫৫ টাকা মূল্যের সম্পদের মালিকানা অর্জন করেছেন। এ ছাড়া তাঁর দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ১৫ কোটি ৭২ লাখ চার হাজার ৮৪৩ টাকার সম্পদ গোপন করার প্রমাণ পাওয়া গেছে। অন্য মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আউয়ালের স্ত্রী লায়লা পারভীন ১০ কোটি ৯৮ লাখ ৯০ হাজার ৫০ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন।

এর আগে গত ৩০ ডিসেম্বর দুদকের উপপরিচালক মোহাম্মদ আলী আকবর দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় বরিশালে তিনটি মামলা দায়ের করেন।