ওয়ালটনের নতুন ‘সেলফি ক্যামেরা’ ফোন

সেলফি। মোবাইল ফোনপ্রেমীদের কাছে এখন একটি প্রিয় বিষয়। সিঙ্গেল বা গ্রুপ ছবি নিজে তোলার এই হাল ফ্যাশন এখন সারা বিশ্বে আলোচিত, সমাদৃত।

সেলফি প্রেমীদের জন্য এবার উন্নত সেলফি তোলার সুবিধাযুক্ত বিশেষ স্মার্টফোন এনেছে ওয়ালটন। প্রিমো এইচ৬প্লাস মডেলের নতুন এই স্মার্টফোনের ফ্রন্টে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ৮ মেগাপিক্সেলের শক্তিশালী ক্যামেরা। ফলে অন্ধকার বা স্বল্প আলোতেও নিঁখুত ও স্পষ্ট সেলফি বা ভিডিও তোলা সম্ভব হবে। গ্রাহকের রঙিন ও স্মরণীয় সব মুহূর্ত থাকবে ফ্রেমবন্দি।

এছাড়াও, এই ফোনের পেছনে আছে এলইডি ফ্ল্যাশসহ বিএসআই সেন্সরযুক্ত এফ ২.২ অ্যাপারচার সাইজের ১৩ মেগাপিক্সেলের অটোফোকাস ক্যামেরা। ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও ফেস বিউটি, ফেস ডিটেকশন, ডিজিটাল জুম, সেলফ-টাইমার, এইচডিআর, প্যানোরমা, সিন মোডসহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় মোডের সঙ্গে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের মাধ্যমেও ছবি তোলা যাবে। উভয় ক্যামেরার ফেস বিউটি ফিচার গ্রাহককে দেবে দাগমুক্ত মসৃণ ও উজ্জ্বল মুখমণ্ডলের ছবি। ছবির স্বাভাবিক রঙ ঠিক থাকবে। ছবি হবে স্পষ্ট ও নিখুঁত।

ওয়ালটনের সেল্যুলার ফোন গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর আরিফুল হক রায়হান জানান, নতুন এই ফোনের উচ্চগতি নিশ্চিতে আছে ৬৪-বিট সম্পন্ন ১.৩ গিগাহার্জের কোয়াড কোর প্রসেসর। উন্নত পারফরম্যান্সের জন্য এতে ব্যবহৃত হয়েছে ৩ গিগাবাইট ডিডিআর-৩ র‌্যাম। উন্নতমানের গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিওর অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে আছে মালি-টি৭২০।
প্রয়োজনীয় ফাইল সংরক্ষণে এই ফোনে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ মেমোরি। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ১২৮ জিবি পর্যন্ত বর্ধিত করা যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।

প্রিমো এইচ৬প্লাস ফোনের সুরক্ষায় যুক্ত হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। যার মাধ্যমে আঙুলের ছোঁয়ায় মাত্র ০.২ সেকেন্ডেই ফোনটি আনলক করা যাবে। ফলে স্ক্রিন আনলকে পাসওয়ার্ড টাইপ করা বা প্যাটার্ন আঁকার প্রয়োজন পড়বে না। ব্যবহারকারী ছাড়া আর কেউ ফোন আনলক করতে পারবে না। এতে ফোনের তথ্য থাকবে সুরক্ষিত। অনলাইন কেনাকাটা বা অ্যাপ অ্যাক্সেসেও ফিঙ্গারপ্রিন্ট কাজ করবে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর হিসেবে পাঁচ আঙ্গুলের ব্যবহার করা যাবে।

এই হ্যান্ডসেটে ব্যবহৃত হয়েছে ৫.৫ ইঞ্চির আইপিএস এইচডি প্রযুক্তির ২.৫ডি কার্ভড (বাঁকানো) গ্লাসের ডিসপ্লে। ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্টেড ১২৮০ বাই ৭২০ রেজুলেশনের পর্দায় পাওয়া যাবে আরো স্পষ্ট ও জীবন্ত ছবি। এছাড়াও, ২.৫ডি কার্ভড গ্লাস ডিসপ্লে প্যানেল ব্যবহারের ফলে স্ক্রিন টাচে গ্রাহক আরো বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন। মিরা ভিশন ডিসপ্লে প্রযুক্তি ব্যবহার করায় ছবি ও ভিডিওর কালার হবে ভাইব্রান্ট ও বৈচিত্রময়। ফুল মেটাল বডির প্রিমো এইচ৬প্লাস হবে অনেক বেশি টেকসই।

ডুয়াল সিম সুবিধার ফোনটি থ্রিজি ও ফোরজি সমর্থন করে। অ্যান্ড্রয়েডের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও উন্নত সংস্করণ নূগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত হওয়ায় এই ফোনের কার্যক্ষমতা ও গতি হবে বেশি। একই সঙ্গে পাওয়া যাবে দারুণ কিছু অতিরিক্ত ফিচার। ডুরা স্পিড প্রযুক্তি অব্যবহৃত অ্যাপস ইনঅ্যাকটিভ করে রাখবে। ফলে ফোনের গতি ও পারফরম্যান্স বাড়বে এবং ব্যাটারি সাশ্রয় হবে। মাল্টি-উইন্ডো প্রযুক্তি থাকায় একই সঙ্গে ডিসপ্লেতে একাধিক অ্যাপস ব্যবহার করা যাবে।
দীর্ঘসময় পাওয়ার-ব্যাকআপের জন্য এতে আছে ৩০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। কানেক্টিভিটির জন্য রয়েছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, মাইক্রো ইউএসবি ২, হটস্পট, ওটিএ ও ওটিজি। মাল্টিমিডিয়া ফিচার হিসেবে আছে ফুল এইচডি ভিডিও প্লে-ব্যাক-এর সুবিধা।

কালো ও সোনালি-এই দুটি ভিন্ন রঙে সারা দেশে বিস্তৃত ওয়ালটন প্লাজা ও ব্রান্ডেড আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে নতুন এই ফোন। দাম মাত্র ১১ হাজার ৯৯০ টাকা। ফোনটিতে থাকছে ১ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

উল্লেখ্য, গ্রাহকদের জন্য ওয়ালটন প্রতিনিয়ত বাজারে ছাড়ছে উচ্চ গুণগতমান ও অত্যাধুনিক ফিচারসমৃদ্ধ নতুন নতুন মডেলের স্মার্টফোন। দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ডেট আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যায় যেকোনো মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। রয়েছে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধাও। আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় সারা দেশে ৬৫টি সার্ভিস পয়েন্টে মোবাইল ফোন গ্রাহকদের দেয়া হচ্ছে দ্রুত ও সর্বোত্তম সেবা।

You Might Also Like