ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া

উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, ‘নির্দিষ্ট শর্তাবলী’ মানা হলে ট্রাম্পের আমেরিকার সঙ্গে কথোপকথনে তাদের কোনো আপত্তি নেই। নরওয়েতে প্রাক্তন মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে উত্তর কোরিয়ার এক শীর্ষ কর্মকর্তা এ কথা বলেন।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উত্তর আমেরিকা বিষয়ক কর্মকর্তা চোয়ে সুন-হুই সাংবাদিকদের বলেন, পিয়ংইয়ংয়ের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের সম্ভাবনা বিবেচনায় রাখছেন তারা। ওসলো থেকে বৈঠক শেষে ফেরার পথে যাত্রা বিরতিতে বেইজিংয়ে বসে তিনি এ কথা জানান। চোয়ে এর আগে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র বিষয়ক আলোচনায় অংশ নিয়েছিলেন।

গত কয়েক মাস ধরে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ ও পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে তীব্র রাজনৈতিক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে সমরসজ্জা ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মাধ্যমে উত্তর কোরিয়া তাদের সামরিক শক্তি প্রদর্শন করেছে। জবাবে যুক্তরাষ্ট্র কোরীয় উপদ্বীপে তাদের সামরিক নৌবহর পাঠিয়েছে এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্রবিরোধী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপন করেছে।

যদিও অতি সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারলে তিনি ‘সম্মানিত’ বোধ করবেন। এর আগে তিনি বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়া সমস্যার শান্তিপূর্ণ কূটনৈতিক সমাধান চান। তবে ‘বড় ধরনের সংঘাতের’ সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেননি তিনি।

জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রকে সংলাপের টেবিলে আনতে উত্তর কোরিয়াকে অন্তত পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ করা বা সংকুচিত করার ব্যাপারে আলোচনায় রাজি হতে হবে বলে আভাস দিয়েছে মার্কিনীরা।

You Might Also Like