বাংলাদেশের জঙ্গি কার্যক্রমে বিদেশি অর্থায়ন থাকতে পারে: মনিরুল

বাংলাদেশের জঙ্গি কার্যক্রমে বিদেশি বিশেষ গোষ্ঠীর অর্থায়ন থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটান পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সম্প্রতি পরিচালিত জঙ্গিবিরোধী দুটি অভিযানের বিষয়ে জানাতে আজ (শনিবার) ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। এ সময় ২২ এপ্রিল ঝিনাইদহ ও ২৬ এপ্রিল চাঁপাইনবাবগঞ্জের জঙ্গিবিরোধী অভিযানের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন তিনি।

মনিরুল ইসলাম বলেন, জঙ্গি কার্যক্রমে অর্থায়নের উৎস নিয়ে কাজ চলছে। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যমতে, জঙ্গি সংগঠনগুলোর সমমনা ব্যক্তি ও প্রবাসীরা এতে অর্থায়ন করছেন। যেসব ব্যক্তি জঙ্গিবাদে যুক্ত হচ্ছেন তারাও নিজেদের সহায়-সম্পত্তি সংগঠনকে বিলিয়ে দিয়েছেন। এছাড়া জঙ্গিবাদ ছড়াতে বিদেশি বিশেষ গোষ্ঠীর অর্থায়নের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়া যায় না।
তিনি আরো বলেন, ঝিনাইদহের জঙ্গি আস্তানায় পরিচালিত অভিযানের সময় পালিয়ে যাওয়া ব্যক্তির নাম আব্দুল্লাহ। তিনি শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানায় পরিচালিত অভিযানে নিহত হয়েছেন। আব্দুল্লাহ তিন বছর আগে ধর্মান্তরিত হন। পরে নব্য জেএমবির টাকায় বাড়ি কিনেন তিনি।
এর আগে সরকারদলীয় নেতারা বিএনপি বা জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদে পৃষ্ঠপোষকতার যে অভিযোগ এনেছেন, তা কতটা যুক্তিযুক্ত বা বাস্তব—জানতে চাইলে মনিরুল বলেন, জঙ্গিদের অনেককে পাওয়া গেছে, যাদের এ ধরনের রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত থাকার অতীত রয়েছে। যেমন সম্প্রতি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে নিহত আবু। তিনি জামায়াতের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। আবুর পুরো পরিবার ও তাঁর শ্বশুরের পরিবারও জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।

শিবগঞ্জের বাড়িটি জঙ্গিদের বিস্ফোরকের সংরক্ষণাগার হিসেবে ব্যবহার হতো বলে জানান পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।
ওদিকে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের শিবনগর গ্রামের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানে নিহত আবুসহ চার জঙ্গির লাশ দাফন করা হয়েছে।
শুক্রবার রাত ২টার দিকে আঞ্জুমানে মফিদুলের মাধ্যমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর গোরস্থানে তাদের দাফন করা হয়।
শিবনগরের আস্তানায় নিহত চার জঙ্গির মধ্যে তিনজন বিস্ফোরণে এবং একজন গুলিতে নিহত হয়েছে বলে ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক ডা. মো. শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন।
এদিকে, রাত ৯টার দিকে জঙ্গি আবুর লাশ তার দূরসম্পর্কের চাচা ইয়াসিন আলীর কাছে দেয়া হলেও তার বাবা-মা না থাকায় লাশটি ফেরত নেয় পুলিশ।
এর আগে শুক্রবার দুপুরের দিকে শিবনগরের ‘জঙ্গি আস্তানা’ থেকে ৪ জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে ক্রাইম সিন ইউনিটের সদস্যরা।

You Might Also Like