চটেছেন ঋষি কাপুর

বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) ক্যান্সারের কাছে পরাজিত হয়ে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে মারা যান বলিউডের এক সময়ের পর্দা কাঁপানো ও জনপ্রিয় অভিনেতা বিনোদ খান্না। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জিসহ বলিউড তারকারা তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মুম্বাইয়ের ওরলির হিন্দু ক্রিমাটোরিয়ামে এ অভিনেতাকে দাহ করা হয়। এ সময় উপস্থিত হয়েছিলেন বিনোদ খান্নার বলিউড বন্ধু ও সহকর্মীরা। উপস্থিত ছিলেন অমর আকবর অ্যান্থনি সিনেমায় বিনোদ খান্নার সহ-অভিনয়শিল্পী ঋষি কাপুর। তবে সহশিল্পী বন্ধুর শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে বর্তমান সময়ের তারকাদের উপস্থিতি না থাকায় ভীষণ চটেছেন ঋষি। মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করে কয়েকটি টুইট করেন তিনি।

টুইটে তিনি লেখেন, ‘লজ্জাজনক। এই প্রজন্মের একজন অভিনয়শিল্পীও বিনোদ খান্নার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে হাজির হননি। তিনি যাদের সঙ্গে কাজ করেছেন তারাও আসেননি। সম্মান দেখানো উচিৎ।’

আরেকটি টুইটে লেখেন, ‘এটা কেন? আমি যখন মারা যাব, আমাকে প্রস্তুত থাকতে হবে। কেউ আমাকে সহযোগিতা করবে না। বর্তমানের তথাকথিত তারকাদের ওপর আমি ভীষণ ক্ষিপ্ত।’

‘গতকাল রাতে প্রিয়াঙ্কার পার্টিতে অনেক চামচাকে দেখেছি, যারা আজকে বিনোদের শেষকৃত্যে নেই। তাদের ওপর ভীষণ ক্ষীপ্ত।’ অন্য আরেকটি টুইটে লেখেন ঋষি।

পরিচালক আদিত্য সুভহা রাও পরিচালিত ‘মন কা মিত’ সিনেমায় প্রথমবারের মতো অভিনেতা হিসেবে নাম লেখান বিনোদ। এরপর ‘পূরব আউর পশ্চিম’, ‘সাচ্চা ঝুটা’, ‘আ মিলো সাজনা’, ‘মাস্তানা’ ‘মেরা গাও মেরা দেশ’, ‘এলান’, ‘হাম তুম আওর ওহ’, ‘ফারেবি’, ‘হাতায়ারা’, ‘কয়েদ’, ‘জালিম’, ‘ইনকার’, ‘গাদ্দার’, ‘আপ কি খাতির’ ‘রাজমহল’, ‘খুন কি পুকুর’, ‘শক’ , ‘আধে দিন আধে রাত’, ‘দৌলত’, ‘কুরবানি’, ‘লেইকিন’ ‘সুরিয়া’ ‘অমর আকবর অ্যান্থনি’, ‘লাহু কে দো রঙ’, ‘কুরবানি’, ‘দয়াবান’, ‘হাত কি সাফাই’ ‘ইনসাফ’, ‘সত্যমেভ জয়তে’ প্রভৃতি সিনেমায় অভিনয় করে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ‘অমর আকবর অ্যান্থনি’ সিনেমায় অমর চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। সুপারহিট ওই সিনেমায় অ্যান্থনি চরিত্রে অমিতাভ বচ্চন ও আকবর চরিত্রে ঋষি কাপুর অভিনয় করেন। বিনোদ খান্না অভিনীত সর্বশেষ সিনেমা ‘দিলওয়ালে’। এতে রণধীর বকশির চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এ ছাড়া ‘দাবাং’, ‘দাবাং-টু’ সিনেমায় অভিনয় করেন বিনোদ খান্না।

সিনেমার পাশাপাশি রাজনীতিতেও বেশ সক্রিয় ছিলেন এই অভিনেতা। ১৯৯৭ সালে তিনি ভারতীয় জনতা পার্টিতে (বিজেপি) যোগদান করেন। এই দল থেকেই মনোনয়ন পেয়ে তিনি একাধিকবার পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর থেকে লোকসভার সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

তিনি ১৯৭১ সালে অভিনেত্রী গীতাঞ্জলীর সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তবে পরবর্তীতে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়। এরপর তিনি কবিতা খান্নাকে বিয়ে করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি তিন পুত্র এবং এক কন্যার জনক। তার পুত্রদের মধ্যে দুজন বর্তমান বলিপাড়ায় বেশ জনপ্রিয়। এদের মধ্যে একজন হলেন- রাহুল খান্না এবং অন্যজন অক্ষয় খান্না।

You Might Also Like