বাংলাদেশে কওমী সনদের স্বীকৃতির প্রতিবাদে আহলে সুন্নাতের সমাবেশ

গত ২৫শে এপ্রিল মঙ্গলবার বাদ মাগরিব নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটস্থ ইত্যাদি গার্ডেন পার্টি হলে সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অযৌক্তিক অন্যায় ও বেআইনীভাবে কওমী মাদ্রাসার দওরায়ে হাদিসকে মাস্টার্স সমমানের স্বীকৃতি দানের ঘোষণর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত ইউএসএ এক প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করে। সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল্লামা সৈয়দ জুবায়ের আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি মাওলানা আতাউর রহমান, প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা আব্দুস শকুর, সহসভাপতি হাফেজ মাওলানা আব্দুর রহীম মাহমুদ, সহসভাপতি মুহাম্মদ ইকবাল হোসাইন, সহসভাপতি মুহাম্মদ আসলাম হাবীব, মহাসচিব আলহাজ্ব মুহাম্মদ সেলিম উদ্দীন, সহসাধারণ সম্পাদকদ্বয় মুহাম্মদ ইস্কান্দর মিয়া ও মুহাম্মদ ওমর ফারুক, প্রচার সম্পাদক মাওলানা মোস্তফা কামাল ও ধর্ম সম্পাদক হাফেজ মাওলানা ওয়াসিম সিদ্দিকী, অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ আরিফ, তথ্য সম্পাদক মুহাম্মদ শাহ আলম ও কার্যকরী কমিটির সদস্যবৃন্দ সৈয়দ আকিকুর রহমান, মুহাম্মদ হাবীব, মুহাম্মদ নাজিম প্রমুখ।

বক্তাগণ বলেন, বাংলাদেশ সরকার অযৌক্তিক বেআইনী ও অন্যায়ভাবে শুধুমাত্র কওমীদের তুষ্ট করতেই কওমী সনদের স্বীকৃতির আশ্বাস দিয়েছেন। এই স্বীকৃতি সরকারের শিক্ষানীতির সাথে সাংঘর্ষিক এবং বিরাজমান শিক্ষা ব্যাবস্থাকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাবে। কারণ রাষ্ট্রের অনুমোদিত ও নিয়ন্ত্রিত আলিয়া মাদ্রাসা এই অদূরদর্শী সিদ্ধান্তের কারণে ধ্বংসের দিকে এগিয়ে যাবে। এই ঘোষণা প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সরকারী অনুমোদিত সমাপনি পরীক্ষা ব্যাতিরেকেই অথবা পাশ কাটিয়েই দেয়া হবে। ফলে বিরাজমান সমগ্র শিক্ষার মান অবনতির দিকে যাবে। বক্তাগণ সরকারকে অনুরোধ করেন তারা যেন রাষ্ট্রীয় কারিকুলাম না মানা ও তদ্ভিত্তিক সমাপনি পরীক্ষা না দেয়া পর্যন্ত যে কোন সনদের স্বীকৃতি দান থেকে বিরত থাকেন নতুবা দেশের শান্তিকামী বিশাল জনগোষ্ঠীর তীব্র বিরোধীতার সম্মুখীন হবেন। বক্তাগণ সরকারকে আরও স্মরন রাখতে বলেন যে, উপমহাদেশে জঙ্গীবাদী তালিবান ও তৎপরবর্তীতে বিভিন্ন কুখ্যাত সন্ত্রাসী গোষ্ঠির জন্ম রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণহীন এই দেওবন্দী কওমীদের থেকেই যদিও তাদের সংখ্যাগরিষ্ট অংশই উক্ত অভিযোগের সাথে যুক্ত নয়। তাই সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সরকারকে ধীরে সুস্থে পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান। বক্তাগন সাথে সাথে সরকারকে নিছক রাজনৈতিক ফায়দা অর্জনের মানসিকতা ত্যাগ করে বিশিস্ট আলেম ওলামা ও সুধীজনদের সাথে পরামর্শ করে কওমী মাদ্রাসাকে সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রনণে ও বিরাজমান শিক্ষা কারিকুলামের আওতায় তথা সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা বোর্ডের আওতায় আনয়নের আহবান জানান যা বিরাজমান একক নিয়ন্ত্রিত ধর্মীয় শিক্ষানীতি সমুন্নত রেখে দেশ ও দেশবাসীর জন্য শান্তি ও নিরাপত্তা বজার রাখবে।

You Might Also Like