‘জঙ্গিবাদ থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরলে জীবিকার সুযোগ দিতে হবে’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যারা জঙ্গিবাদ ও চরমপন্থা থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায় তাদের জীবন ও জীবিকার সুযোগ করে দিতে হবে।

বুধবার রাজধানীর কুর্মিটোলায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদর দপ্তরে সংস্থার ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জঙ্গিরা যেন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে আমরা সে জন্য কাজ করছি। ইতোমধ্যে যেসব জঙ্গি আত্মসমর্পণ করেছে তাদের তালিকা করা হয়েছে। তাদের অর্থনৈতিকভাবে সহায়তা করা হবে। যে ধরনের কাজ তারা করতে চায় সেটা করতে সহায়তা করা হবে যাতে তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘বৃহত্তর কুমিল্লা ও ফরিদপুরকে বিভাগ করার পরিকল্পনা আছে আমাদের।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাধীনতার সময় দেশে সাড়ে সাত কোটি মানুষ ছিল। যা এখন ১৬ কোটি। তাদের সঠিক সেবা দিতে প্রশাসনকেও ঢেলে সাজানো দরকার। সেটা আমরা করছি। র‌্যাবের অবকাঠামোগত সুযোগ বৃদ্ধির ব্যবস্থাও নিয়েছি। ২০১৫ থেকে এ পযন্ত র‌্যাবের বাজেট দ্বিগুণ বাড়ানো হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘র‌্যাবের জন্য অত্যাধুনিক সরঞ্জামাদির ব্যবস্থা করা হয়েছে। যেকোনো অপারেশনে সমন্বয়ের প্রয়োজন। যার যেখানে যতটুকু আছে তা দিয়ে সহযোগিতা করবে।’

দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় যথেষ্ট সফলতার পরিচয় দিয়েছে র‌্যাব, বিশেষ করে জঙ্গিবাদ দমনে এ বাহিনীর ভূমিকা প্রশংসনীয় বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আন্দোলনের নামে রাজনৈতিক দলগুলো সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালালে জঙ্গিরা উৎসাহিত হয়। দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পেশাদারিত্ব বজায় রেখে দায়িত্ব পালনে র‌্যাব সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এরআগে অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘গার্ড অব অনার’ দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, তিন বাহিনীর প্রধান, স্বরাষ্ট্রসচিব ও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক। এতে সভাপতিত্ব করেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।

২০০৪ সালের স্বাধীনতা দিবসের প্যারেডে অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে আত্মপ্রকাশ ঘটে এই এলিট ফোর্সের। বাংলাদেশ পুলিশ ছাড়াও সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), কোস্টগার্ড, আনসার ও সরকারের বেসামরিক প্রশাসনের বাছাইকৃত কর্মকর্তা ও অন্য সদস্যদের নিয়ে গঠিত হয় র‌্যাব।

২৬ মার্চ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী হলেও এক মাস পরে বুধবার ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করছে এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

বাহিনীটির গোয়েন্দা প্রধান সিলেটের জঙ্গি আস্তানা আতিয়া মহলের বাইরে হঠাৎ বোমার বিস্ফোরণে আহত হয়ে প্রথমে বাংলাদেশ সামরিক হাসপাতাল ও পরে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসার পর ঢাকায় মারা যান। এ কারণে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পিছিয়ে দেয়া হয়।

You Might Also Like