আটলাণ্টিক সিটি হাই স্কুলের টপ টেন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে তিনজন বাংলাদেশী

আটলাণ্টিক সিটি থেকে আকবর হোসাইন : আটলান্টিক সিটির ৩৩৬ জন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে টপ টেন স্টুডেন্ট হিসাবে স্হান করে নিয়েছে বাংলাদেশী  মেধাবী ছাত্রী তাজিম কবির,আলিয়া হাসান এবং রোজেন আহমেদ। পৃথিবীর ২য় বৃহত্তম গেমলিং সিটি হিসাবে পরিচিত আটলাণ্টিক সিটিতে এক সময় বাংলাদেশীদের কাছে সুখবর ছিল ক্যাসিনোতে চাকুরী পাওয়া। সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে পরিবর্তন এসেছে সর্বক্ষেত্রে । বর্তমানে আইটির চাকুরী পাওয়া, ডাক্তারী পড়া, ইঞ্জিনিয়ারিং পড়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে  ভর্তি হওয়ার সংবাদ  বাংলাদেশীদের কাছে একমাত্র সুসংবাদ। সন্তানের সাফল্যের সংবাদ এখন আটলান্টিক সিটির প্রায় চল্লিশটি পরিবারে আনন্দ ছড়িয়েছে। তবে চল্লিশজন স্কুল গ্যাজুয়েটের মধ্যে সবছেয়ে ভাল সাফল্যের সংবাদ নিয়ে এসেছে মেধাবী ছাত্রী তাজিম কবির,আলিয়া হাসান এবং রোজেন আহমেদ। পর পর ২য় বারের মত তিনজন বাংলাদেশী  আটলাণ্টিক সিটি হাই স্কুলের টপ টেন ছাত্রের তালিকায় স্থান করে নিল। এর আগে মাহির,পথিক চৌধুরী এবং মারিয় ইসলাম একই বছরে টপ টেন লিস্টে স্হান করে নিয়েছিলো।তাদের  তাজিম কবির,আলিয়া হাসান এবং রোজেন আহমেদ। সাফল্যে, সাউথজার্সীতে বসবাসরত কয়েক হাজার বাংলাদেশী আজ গৌরবান্নিত।তাদের সাফল্যের খবর বর্তমানে সাউথজার্সীর ইংরেজী দৈনিক পত্রিকা “দ্যা প্রেস অব  আটলাণ্টিক সিটিতে”  ফলাও করে প্রকাশিত হয়েছে ।

Atlantic_2আটলাণ্টিক সিটি হাই স্কুলের টপ টেন ছাত্রের মধ্যে ৩য় স্থান অধিকারী তাজিম কবির আমেরিকার নামকরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সুযোগ পেয়েছে। ৪.৩৯ জিপিএ প্রাপ্ত তাজিন  প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটিতে  রসায়নবিদ্যার উপর পড়শোনা করে  একজন বিশ্বখ্যাত সাইন্টিস্ট হতে চায়।  প্রতিভাবান তাজিম  পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক এবং সেবামূলক সংগঠনের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছে। আত্নবিশ্বাসী এবং দৃঢ় প্রত্যয়ী তাজিন দীর্ঘ সময় ধরে পড়াশোনা না করলেও যতক্ষন পড়াশোনা করত ততক্ষন খুবই মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনা করত।পড়াশোনার পাশাপাশি অনলাইনে টাইম ম্যাগাজিন, ডেইলি নিউইয়র্ক টাইমস, ওয়াশিংটন পোষ্ট, ও বিবিসির বিজ্ঞানভিত্তিক বিভিন্ন খবর পড়ে সময় কাটাতে সে পছন্দ করে।এছাড়াও থ্রিলার ও একশানধর্মী মুভি দেখে সে সময় কাটাই ।তাজিন ন্যাশনাল অনার সোসাইটির সদস্য,ষ্টুডেন্ট কাউন্সিলের বোর্ড রিপ্রেজেন্টিটিভ । গিফটেড টেলেনটেড এডুকেশান একাডেমিক টিমের ২০১০-২০১৪ সালের প্রসিডেন্ট। ক্লাস অব ২০১৪ এর এডভাইজার।অনন্য প্রতিভার অধিকারী তাজিন পড়াশোনা এবং খেলাধুলার পাশাপাশি লিউ ক্লাব,ক্লাব,কি ক্লাব, ন্যশনাল অনার সোসাইটি, রেড ক্রস এবং ফিজিক্স টিমের বাজেট কমিটির  সাথে জড়িত। সে জানায় মেধার পরিপূর্ণ বিকাশের জন্য নন-প্রফিট সংগঠনসহ বিভিন্ন সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত থাকা খুবই জরুরী। ১৭ বছর বয়সী তাজিমের বাবা হুমায়ুন কবির আটলাণ্টিক সিটির রাজনৈতিক এবং সামাজিক অঙ্গনে খুবই পরিচিত ব্যক্তি। তাজিনের মা  আয়েশা আকতার । তাজিমের বাড়ি বাংলাদেশের মীরপুর ঢাকা।

আটলাণ্টিক সিটি হাই স্কুলের টপ টেনের মধ্যে ৫ম স্থান অধিকারী আলিয়া হাসান রাটগারস ইউনিভার্সিটিতে বিনা খরছে পড়ার সুযোগ পেয়েছে।আলিয়ার বাবা  ইমতিয়াজ হোসেন  আটলান্টিক সিটির একজন সুপরিচিত ব্যক্তি।   আলিয়ার মা আফরোজা পারভীন আটলান্টিক সিটি ওয়াটার ডিপার্টমেন্টের একজন কর্মকর্তা।  আলিয়া রাটগারস ইউনিভার্সিটিতে আইন বিভাগে পড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বাবা মায়ের ইচ্ছা অনুসারে সে একজন নামকরা আইনবিদ হয়ে বাংলাদেশীদের সেবা করতে চায়।আলিয়া ন্যাশনাল অনার সোসাইটির ভাইস-প্রসিডেন্ট ছাড়াও কোয়েস্ট ব্রিজ এবং এপি স্কলার।

Atlantic_3আটলাণ্টিক সিটি হাই স্কুলের টপ টেনের মধ্যে ৯ম স্থান অধিকারী রোজেন আহমেদ রাটগারস ইউনিভার্সিটিতে,  অর্থনীতিতে পড়াশোনার সুযোগ পেয়েছে। পড়াশোনা শেষ করে মারিয়া ইউনিসেফ, ইউনাইটেড নেশানে কূটনীতিবিদ হওয়ার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রর ল’ এনপোর্চমেণ্ট আফিসার হিসাবে কাজ করতে চায়।প্রথাগত পেশার বাহিরে ভিন্নমূখী পেশার স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে চলেছে মারিয়া। রোজেন আহমেদের  বাবা  মনসুর আহমেদ আটলাণ্টিক সিটির একজন সূপরিচিত ব্যক্তি এবং মাতা নাজনীন সুলতানা সন্তানের সাফল্যে খুবই আনন্দিত।  রোজেন আহমেদ   ঢাকার গাজীপূর জেলার  অধিবাসী। রোজেনের বড় ভাই সাফল্যের সঙ্গে ইঞ্চিনিয়ারিং ডিগ্রি নিয়ে বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম নামকরা প্রতিষ্ঠান সেন্ডলারে সিনিয়ার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কর্মরত। আটলাণ্টিক সিটিতে বসবাসকারী রোজেন পড়াশোনার পাশাপাশি ন্যশনাল অনার সোসাইটি,বেনসিউর স্কলার,ডিকা ষ্টেট চ্যাম্পিয়ান এবং কোয়েষ্ট ব্রীজ স্কলার।এছাড়াও আর্ট ক্লাব, কি ক্লাব,ষ্টুডেন্ট কাউন্সিল,ডিকা ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছে।  বাংলাদশী ছাত্রী  তাজিম কবির,আলিয়া হাসান এবং রোজেন আহমেদ কৃত্বিতের সংবাদ নিউজার্সীর সাউথজার্সীতে বসবাসরত বাংলাদেশীদেরকে একদিকে যেমন করেছে গৌরবান্নিত  অন্যদিকে আগামী প্রজন্মের জন্য শিক্ষা ক্ষেত্রে তৈরী করেছে  দিক নির্দেশনা। তাজিম কবির,আলিয়া হাসান এবং রোজেন আহমেদের মত রাবেয়া বশরী,অনিক চৌধুরী,সামিহা আহমেদ,খালেদ আকাশ,মোঃ নিকসন এবং সুজেয়   তালুকদার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্কলারশীপ পেয়ে পড়ার সুযোগ পেয়েছে। বাংলাদেশী ছেলেমেয়েদের  অনন্য কৃতিত্বে অনেক আমেরিকানকে যেমনি করেছে  ঈর্ষানিত ঠিক তেমনি বাংলাদেশীদের মধ্যে জাগিয়ে তুলেছে আশার আলো।আগামীতে তাজিম কবির,আলিয়া হাসান এবং রোজেন আহমেদ মত অনন্য কৃত্বিতের স্বাক্ষর রেখে আমেরিকার মাটিতে বাংলাদেশীদের মর্যাদা বহুগুন বাড়িয়ে দেবে এটাই প্রবাসী সাউথজার্সীবাসীর প্রত্যাশা।

নিউজার্সীর আটলাণ্টিক কাউণ্টিতে বসবাসরত কয়েকশত ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে ২০১১ সালে একাডেমিক এক্সিলেন্সী প্রোগামের আওতায় অসামান্য রেজাল্ডের জন্য কাউণ্টির ষ্টুডেণ্ট অব দ্যা ইয়ারে ভূষিত হন বাংলাদেশী নাজিফা চৌধুরী।এর পূর্বে নাজিফা চৌধুরী আটলাণ্টিক সিটির সভরেইন এভিনিউ হাইস্কুল থেকে কৃত্বিতের সাথে জুনিয়ার গ্রেজুয়েশন ডিগ্রি লাভ করেছেন। নাজিফা সভরেইন এভিনিউ হাইস্কুলে দুবার ষ্টুডেণ্ট কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।নাজিফা দীর্ঘদিন ধরে এশিয়ান-আমেরিকান ক্লাবের  প্রেসিডেণ্ট ছিল। তার কৃত্বিতের স্বাক্ষর হিসাবে ইতিমধ্যে নিউজার্সী ষ্টেট সিনেটর ফ্রাংক লুটেনবার্গ, কংগ্রেসম্যান ফ্রাংক লুবিণ্ডূ,নিউজার্সী ষ্টেট সিনেটর জিম হুইলেন, আটলাণ্টিক কাউণ্টি এক্সিকিউটিব ডেনিস লেবিনসন এবং আটলাণ্টিক কাউণ্টি বোর্ড অব এডুকেশান তাকে অভিনন্দন জানিয়েছে এবং সম্প্রতি আটলাণ্টিক কাউণ্টি বোর্ড অব এডুকেশনের পক্ষ থেকে হোটেল ক্লারিওনে তাকে আনুষ্টানিকভাবে সংবধনা প্রদান করা হয়। নাজিফা বিশিষ্ট কলামিষ্ট নাসির উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী এবং আটলাণ্টিক সিটি ডেমোক্রেটিক পার্টির কমিটি পারসন ও বাংলাদেশের সাবেক রাজনীতিবিদ শিরিন চৌধুরীর কনিষ্ট কন্যা।নাজিফা সন্ধীপের অন্যতম সম্ভ্রান্ত্র ফ্যামিলি সন্ধীপ টাউন চৌধুরী বাড়ির মরহুম রুহুল মতিন চৌধুরী ও বরিশালের প্রবীন রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক দীন মোঃ চৌধুরীর নাতনী।নাজিফা চৌধুরী সকলের দোয়া প্রার্থী

You Might Also Like