অক্ষয়ের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার নিয়ে বিতর্ক

বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার। প্রথমবারের মতো ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছেন এই অভিনেতা। ‘রুস্তম’ সিনেমায় অভিনয় করে সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতেছেন তিনি।

গত ৭ এপ্রিল প্রকাশিত হয় ভারতের ৬৪তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ীদের তালিকা। কিন্তু অক্ষয়ের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্তি নিয়ে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে বিতর্ক। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এমন খবর প্রকাশ করেছে।

প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, পরিচালক প্রিয়দর্শনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার জন্য অক্ষয়কে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে প্রিয়দর্শন ন্যাশনাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডের ফিচার ফিল্ম বিভাগের চেয়ারপার্সন। তিনি এ বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার নির্বাচনের জুরি-প্রধানও ছিলেন। আর এনিয়ে বলিপাড়া ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে তুমুল বিতর্ক।

পরিচালক প্রিয়দর্শনের বেশ কিছু জনপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করেছেন অক্ষয়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ‘হেরা ফেরি’, ‘গরম মাসালা’, ‘ভুল ভুলাইয়া’ প্রভৃতি।

স্বাভাবিকভাবেই অক্ষয়কে সেরা অভিনেতা হিসাবে নির্বাচন করার সময় প্রিয়দর্শন সেই পুরোনো বন্ধুত্বকেই মর্যাদা দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। যদিও এসব অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন প্রিয়দর্শন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সব কিছুই শুনেছি। আমার উত্তর হলো, যখন রমেশ সিপ্পি জুরি প্রধান ছিলেন, তখন অমিতাভ বচ্চনকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। তখন তো কোনো কথা ওঠেনি। তবে এখন কেন হচ্ছে?’

শুধু রমেশ সিপ্পি-অমিতাভ বচ্চনই নয়, এক সময় এমন কথা উঠেছিল যে, পরিচালক প্রকাশ ঝায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা থাকার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছিলেন অভিনেতা অজয় দেবগন। অজয় যে প্রকাশের পছন্দের অভিনেতা, সে কথা কারো অজানা নয়।

প্রিয়দর্শন আরো বলেন, ‘‘নিজের যোগ্যতাতেই পুরস্কার জিতেছেন অক্ষয়। ‘এয়ারলিফট’ এবং ‘রুস্তম’ দু’টি সিনেমাতে অক্ষয়ের অভিনয় পছন্দ ছিল জুরি বোর্ডের। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী, বেছে নিতে হয় একটি সিনেমা। তাই বেছে নেওয়া হয় ‘রুস্তম’ সিনেমাটি।’’

এদিকে অনেক আগে আমির খান জানিয়ে দিয়েছেন যে, অ্যাওয়ার্ড ফাংশনে যেতে এবং পুরস্কার নিতে পছন্দ করেন না তিনি। আর তাই তাকে পুরস্কৃত করার ঝুঁকি জুরি নিতে চায়নি বলেও জানিয়েছেন প্রিয়দর্শন।

You Might Also Like