জনপ্রিয়তার প্রথম পরীক্ষায় উতরে গেছেন সু চি

এক বছর আগে ক্ষমতায় আসা মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি তার জনপ্রিয়তার প্রথম পরীক্ষায় উতরে গেছেন। শনিবার দেশটিতে পার্লামেন্টের ১২টি আসনের উপনির্বাচনে ঘোষিত আটটির মধ্যে সাতটিতেই জয় পেয়েছে তার দল। আর মাত্র একটি আসনে জয় পেয়েছে সেনা সমর্থিত দল।

রোববার দেশটির নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, বাকী চারটি আসনের ফলাফল ঘোষণায় কাজ চলছে।

২০১৫ সালের জাতীয় নির্বাচনে পার্লামেন্টের সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জয় পায় সু চির দল এনএলডি। পরাজিত হয়ে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ায় সামরিক জান্তা। সরকার গঠনের পর দেশটির শাসন বিভাগে তেমন সংস্কার আনতে পারে নি সু চি সরকার। এছাড়া রোহিঙ্গা ইস্যুতেও সু চির ভূমিকা নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। ধারণা করা হচ্ছিল এসব বিষয় হয়তো উপ-নির্বাচনে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে।

শনিবারের উপ-নির্বাচনে এনএলডি ইয়াঙ্গুন অঞ্চলে পার্লামেন্টের নিম্মকক্ষে পাঁচ ও উচ্চকক্ষে একটি আসনে জয় পেয়েছে। এছাড়া মধ্য মিয়ানমারের সাগিং এলাকার একটি আসনেও জয় পেয়েছে দলটি। এগুলোর মধ্যে সু চির ছেড়ে দেওয়া একটি আসনও রয়েছে। সামরিক বাহিনী সমর্থিত ইউনিয়ন সলিডারিটি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি নিম্মকক্ষে মাত্র একটি আসনে জয় পেয়েছে।

প্রাথমিক এই ফলাফলে বোঝাই যাচ্ছে, সু চি তার জনপ্রিয়তা গত এক বছর ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছেন।

You Might Also Like