চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা নিরসনে ২৮৯ কোটি টাকার প্রকল্প

চট্টগ্রাম শহর ও আশে পাশের জলাবদ্ধতা নিরসনে খাল খনন করতে ২৮৯ কোটি ৪৪ লাখ টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) ২৬তম সভায় এ প্রকল্প অনুমোদন হয়।

প্রকল্পটি হচ্ছে ‘বহদ্দারহাট বারইপাড়া হতে কর্ণফুলী নদী পর্যন্ত খাল খনন’ শীর্ষক প্রকল্প। প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে জানুয়ারি ২০১৪ হতে জুন ২০১৬ পর্যন্ত। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

প্রকল্প সম্পর্কে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘এ প্রকল্পের মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম শহরে ২.৯ কি. মি. দৈর্ঘ্য ও ৬৫ ফুট প্রস্থ খাল খনন করা হবে। এছাড়া খালের উভয় পাশে ২০ ফুট প্রস্থের রাস্তা নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে। যাতে যানচলাচলসহ খালটি সহজে পরিষ্কার এবং আশে পাশের যানজট দূরীকরণ করা যায়।’

সভায় ৫০৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকার তিনটি প্রকল্প পাস হয়। মোট প্রকল্প বরাদ্দের মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ৪২৭ কোটি ১২ লাখ টাকা ও সংস্থার নিজস্ব তহবিলের পরিমাণ ৭৬ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। তিনটি প্রকল্পই নতুন প্রকল্প। প্রকল্প তিনটির মধ্যে একটি সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ও বাকি দু’টি সরকারি ও সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়িত হবে।

অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে ‘কন্টেইনার ও কার্গো হ্যান্ডলিং যন্ত্রপাতি সংগ্রহ’ শীর্ষক প্রকল্প। যার ব্যয় ধরা হয়েছে ৮৭ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

এছাড়া রয়েছে ‘পাগলা-জগন্নাথপুর-রাণীগঞ্জ-আউশকান্দি মহাসড়কের রাণীগঞ্জে কুশিয়ারা নদীর উপর সেতু নির্মাণ’ প্রকল্প।

এ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ১২৬ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। প্রকল্পটি সম্পূর্ণ জিওবি অর্থায়নে সড়ক বিভাগের আওতায় সড়ক ও জনপথ অধিদফতর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম.এ. মান্নানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like