মেরকেলকে ট্রাম্প : আমরা উভয়ই আড়িপাতার শিকার

যুক্তরাষ্ট্রে সফরে থাকা জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মেরকেলকে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ‘আমরা উভয়ই প্রেসিডেন্ট ওবামার অধীনে ফোনে আড়িপাতার শিকার হয়েছি।’

প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার অধীনে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ফোনে আড়ি পেতেছেন বলে এখনো কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তথ্য-প্রমাণের উল্লেখ ছাড়াই ট্রাম্প বারবার এ অভিযোগ করে যাচ্ছেন। এবার এর সঙ্গে জার্মান চ্যান্সেলর মেরকেলকে যুক্ত করে নিয়ে অভিযোগ আরো শক্তিশালী করার চেষ্টা করছেন ট্রাম্প।

মেরকেলকে ট্রাম্প বলেছেন, ‘হতে পারে, অন্তত পক্ষে আমাদের মধ্যে কিছু সাধারণ ঘটনা আছে।’

ওবামার শাসনামলে মার্কিন গোয়েন্দারা মেরকেলের ফোন পর্যবেক্ষণে রেখেছিলেন। এ তথ্য ফাঁস হওয়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জার্মানি।

কিন্তু কংগ্রেসের রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটিক উভয় পক্ষের নেতারা বিশ্বাস করেন, ট্রাম্পের ফোনে আড়িপাতা হয়নি।

ট্রাম্প ও মেরকেলের দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে ন্যাটো ও বাণিজ্যসহ গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে আলোচনা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছানোর কথা ছিল মেরকেলের। কিন্তু তুষারঝড় স্টেলার কারণে সফরসূচি পরিবর্তন করা হয় এবং শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছান মেরকেল।

শুক্রবার বৈঠক শেষে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ফোনে আড়িপাতার বিষয়ে কথা বলেন ট্রাম্প। হঠাৎ ট্রাম্পের এ কথায় অপ্রস্তুত হয়ে পড়েন মেরকেল।

এর আগে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র শন স্পাইসার অভিযোগ করেন, যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা সিজিএইচকিউ নির্বাচনী প্রচারের সময় ট্রাম্পের ফোনে আড়িপাতে। সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে ট্রাম্পের কাছে জানতে চাওয়া হয়।

ট্রাম্প বলেন, ‘ফক্স নিউজের একটি খবর উদ্ধৃত করেছেন স্পাইসার। এ বিষয়ে তার মতামত চাওয়া হয়নি।’ সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘এ নিয়ে আমার সঙ্গে কথা বলা উচিত নয়, আপনারা বরং ফক্স নিউজের সঙ্গে কথা বলুন।’

এর পরিপ্রেক্ষিতে ফক্স নিউজ একটি বিবৃতি প্রচার করে। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট কোনো সময়ে যেকোনোভাবে গোপন পর্যবেক্ষণের শিকার হয়েছে বলে আমাদের কোনো তথ্য-প্রমাণ জানা নেই।’

জিসিএইচকিউ এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে এবং একে ‘কাণ্ডজ্ঞানহীন’ বলে অভিহিত করেছে। এ ধরনের কোনো অভিযোগ আর করা হবে না বলে ডাউনিং স্ট্রিট নিশ্চয়তা চেয়েছে।

You Might Also Like