সিআইএ-কে ড্রোন হামলার অনুমতি দিলেন ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের বিরুদ্ধে নতুন করে (সিআইএ) ড্রোন হামলার অনুমতি দিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সোমবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল অনলাইন এ তথ্য জানিয়েছে।

পূর্বসূরি বারাক ওবামা সিআইএর আধাসামরিক ভূমিকার সীমিত রাখার যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন, ট্রাম্পের নতুন অনুমোদন তা বদলে দিল। এখন প্রয়োজনে ড্রোন হামলা চালাতে পারবে সিআইএ।

তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি হোয়াইট হাউস, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ও সিআইএ।

যুক্তরাষ্ট্রের দেখাদেখি অন্যান্য দেশ নিজস্ব ড্রোন কর্মসূচি গ্রহণ করে হামলা চালানো শুরু করার পর বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে ড্রোন ব্যবহারের নির্দেশিকা তৈরি করতে চেয়েছিলেন বারাক ওবামা।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক ও ওয়াশিংটনে সন্ত্রাসী হামলার পর বিশ্বজুড়ে সন্ত্রাসীদের টার্গেট করে ড্রোন (চালকবিহীন বিমান) হামলা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের আস্তানা লক্ষ্য করে ড্রোন থেকে পণাস্ত্র হামলা চালাতে থাকে দেশটি।

প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের আমলে ক্ষেপণাস্ত্র বহনে সক্ষম প্রিডেটর ও রিপার শ্রেণির ড্রোন ব্যবহার করে বিদেশে সন্ত্রাসী আস্তানা হামলা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। প্রেসিডেন্ট ওবামা প্রথমে এই কার্যক্রম সম্প্রসারণ করেন, তবে শেষ পর্যন্ত ড্রোন ব্যবহার সীমিত রাখার পক্ষে ছিলেন তিনি।

ড্রোন ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের এই ‘টার্গেট কিলিং’ কর্মসূচি বিতর্কের সৃষ্টি করে। কারণ তারা যতসংখ্যক মারছে, তার চেয়েও বেশি সন্ত্রাসী তৈরি হচ্ছে। সমালোচকরা প্রশ্ন তোলেন, বিশ্বজুড়ে জঙ্গি-সন্ত্রাসী সংগঠন ও তাদের কার্যক্রম বেড়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় টার্গেট কিলিং (ড্রোন হামলা) সমস্যাকে আরো ঘনীভূত করছে।

গত বছর জুলাই মাসে মার্কিন সরকার স্বীকার করে, যুদ্ধে জড়িত নয়, এমন সব দেশে তাদের ড্রোন হামলায় ১১৬ জনের প্রাণ গেছে।

You Might Also Like