মেরকেলকে এরদোয়ান : আপনি কেন সন্ত্রাসীদের লুকাচ্ছেন?

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান জার্মানির চ্যালেন্সর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের প্রতি আক্রমণাত্মক প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেছেন, ‘আপনি কেন সন্ত্রাসীদের লুকিয়ে রাখছেন?’

নেদারল্যান্ডসে এরদোয়ানের ক্ষমতা বাড়ানোর গণভোটের পক্ষে প্রচার চালাতে না দেওয়া এবং তুর্কি মন্ত্রীকে সে দেশ থেকে বের করে দেওয়ার পর ইউরোপীয় নেতাদের সঙ্গে বাগযুদ্ধে লিপ্ত হয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তবে কথার আক্রমণের দিক থেকে এরদোয়ান এগিয়ে আছেন।

তুরস্কের ‘এ হাবের টিভি’-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এরদোয়ান অভিযোগ করেন, জার্মান চ্যান্সেলর মেরকেল সন্ত্রাসীদের সমর্থন করছেন। তবে এরদোয়ানের এ বক্তব্যকে ‘কিম্ভুতকিমাকার’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন মেরকেল।

এক লিখিত বিবৃতিতে মেরকেলের মুখপাত্র স্টেফান সেইবার্ট বলেছেন, ‘উসকানির ক্রীড়ায় অংশ নেওয়ার কোনো ইচ্ছা নেই চ্যান্সেলরের।’

এরদোয়ানের ভাষ্য, জার্মানিতের অনুপ্রবেশকারী ৪ হাজার ৫০০ জনের যে তালিকা দিয়েছে তুরস্ক, তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না চ্যান্সেলর। তিনি অভিযোগ করেন, ‘মিসেস মেরকেল, আপনার দেশে কেন সন্ত্রাসীদের লুকিয়ে রাখছেন আপনি? কেন আপনি কিছু করছেন না?… আপনি সন্ত্রাসীদের লুকিয়ে রাখছেন।’

কোন সন্ত্রাসীদের কথা বলছেন, তা পরিষ্কার করেননি এরদোয়ান। তবে তিনি কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। এটি ইউরোপীয় দেশগুলোতে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে পরিচিত।

নেদারল্যান্ডস ও জার্মানি এরদোয়ানের ক্ষমতা বাড়ানোর গণভোটের পক্ষে প্রচার চালাতে বাধা দেওয়ায় ওই দুই দেশের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন তুর্কি নেতারা। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন তুরস্ককে সতর্ক করে দিয়ে কথার আক্রমণ থামানোর পরামর্শ দেয়। কিন্তু উল্টো আক্রমণের পথেই হাঁটছেন এরদোয়ান ও তার সরকার।

১৬ এপ্রিল তুরস্কে গণভোট হবে। এ গণভোটের উদ্দেশ্য তুরস্কে সংসদীয় পদ্ধতির সরকার ব্যবস্থার পরিবর্তন করে রাষ্ট্রপতিশাসিত সরকার ব্যবস্থার প্রবর্তন করা। এ ব্যবস্থা চালু হলে রাষ্ট্রের সর্বময় ক্ষমতা চলে আসবে এরদোয়ানের হাতে। একহাতে দেশ চালাতে পারবেন তিনি। পছন্দমতো মন্ত্রিসভা গঠন, ফরমান ও জরুরি অবস্থা জারির জন্য কারো মুখাপেক্ষী হতে হবে না তাকে।

এরদোয়ানপন্থিরা গণভোটের পক্ষে থাকলেও বিপক্ষে বড় অংশের মানুষ অবস্থান নিয়ে আন্দোলন-বিক্ষোভ করছে। কিন্তু গত বছর জুলাই মাসের ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের সুযোগ নিয়ে জনগণকে প্রতারিত করার ফাঁদ পেতেছেন এরদোয়ান- বিরোধীরা এমনটি দাবি করছেন।

You Might Also Like