“দ্যা ইসলামিক একাডেমী অব সাউথজার্সীর” কার্যক্রম শুরু

“আমাদের স্বপ্ন স্বার্থক হয়েছে” এমনি শ্লোগানের মধ্য দিয়ে এগিয়ে চলেছে দ্যা ইসলামিক একাডেমী অব সাউথজার্সীর কার্যক্রম।সাউথজার্সীতে বসবাসরত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলমান শিশুদেরকে  ইসলামিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার প্রত্যয় নিয়ে দশ মিলিয়ন ডলারের প্রজেক্ট হাতে নিয়েছিল মসজিদ আল তাকোয়ার ম্যানেজিং কমিটি যা এখন “দ্যা ইসলামিক একাডেমী অব সাউথজার্সী” হিসাবে কার্যক্রম শুরু করেছে । দীর্ঘ দশ বছর পূর্বে  শুরু হওয়া এই প্রজেক্টের সফল বাস্তবায়নের প্রথম দাপ হিসাবে প্রথম শ্রেনী থেকে তৃতীয় শ্রেনী পর্যন্ত ভর্তির কার্যক্রম সম্পর্কে সাউথজার্সীতে বসবাসরত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলামনদেরকে জানানো এবং একাডেমীর কার্যক্রম সম্পর্কে সকলকে অবহিত করার লক্ষ্যে গত ১৫ই জুন বুধবার ইসলামিক একাডেমীর ৩০৫৬ ইংলিশ ক্রিক এভিনিউস্ব নিজস্ব ভবনে এক উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। একাডেমীর বর্তমানে আরবী শিক্ষা বিভাগের এক তৃতীয়াংশ ছাত্র বাংলাদেশী যার পরিপ্রেক্ষিতে বিপুল পরিমান বাংলাদেশী উপস্হিত হয়েছিলেন উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে।সারাদিন ব্যাপী অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে ছিল কোর্স কারিকুলাম সম্পর্কে অবহিত করা,বর্তমান শিক্ষার্থীদেরকে সন্মাননা প্রদান,হাম,নাদ পরিবেশন,শিশুদের জন্য নানাবিধ খেলাধুলার আয়োজন,যে সকল ছাত্রছাত্রীদের মা সন্তানদের স্কুলে প্রতি শনি এবং রবিবারে পাঠিয়েছেন তাদের মায়েদেরকে মাদার অফ দ্যা ইয়ার সন্মাননা প্রদান এবং বারবাকিউর আয়োজন।এবছর মাদার অফ দ্যা ইয়ার সন্মাননা পেয়েছেন বাংলাদেশী পারভীন আকতার খান।   মসজিদ আল-তাকোয়ার সানডে স্কুলের সেক্রেটারী বাংলাদেশী ফাতেমা আলম জানান।বিপুল পরিমান অর্থ ব্যয়ে নির্মিত এই প্রতিষ্ঠানটি হবে সমগ্র নিউজার্সী তথা সাউথজার্সীর মুসলমানদের জন্য ষ্টেট অনুমোদিত অন্যতম বৃহৎ আরবী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

You Might Also Like