গার্মেন্টস শ্রমিকদের অর্থসহায়তা দ্রুত দেওয়ার সিদ্ধান্ত

শতভাগ রপ্তানিমুখী গার্মেন্টস শিল্পে কর্মরত শ্রমিকদের জন্য গঠিত কেন্দ্রীয় তহবিল থেকে শ্রমিকদের অর্থসহায়তা দ্রুত প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বুধবার সচিবালয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে তহবিল পরিচালনা বোর্ডের তৃতীয় সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক।

সভায় জানানো হয়, গত বছরের অক্টোবর থেকে শতভাগ রপ্তানিমুখী গার্মেন্টস শিল্পে কর্মরত শ্রমিকদের বিমার টাকা এবং চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মৃত্যুবরণকারী শ্রমিকদের স্বজনদের কেন্দ্রীয় তহবিল থেকে এই অর্থসহায়তা দেওয়া হবে।

শ্রমিকদের সহায়তার লক্ষ্যে সরকার বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর ২৩২(৩) ধারার ক্ষমতাবলে বাংলাদেশ শ্রম বিধিমালা, ২০১৫ এর ২১৮ বিধিতে উল্লিখিত কাঠামোর আলোকে গত বছর ৬ এপ্রিল তারিখের ১৯৩নং প্রজ্ঞাপন দ্বারা গার্মেন্টস শিল্প সেক্টরের কেন্দ্রীয় তহবিল পরিচালনা বোর্ড গঠন করে।

রপ্তানিমুখী গার্মেন্টস শিল্পের মোট রপ্তানি অর্থের শূন্য দশমিক শূন্য তিন ভাগ অর্থ সরাসরি এ তহবিলে জমা হয়। গত জুলাই থেকে এ তহবিলে ২৬ কোটি টাকারও বেশি জমা হয়েছে।

বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, কোনো শ্রমিক কর্মক্ষেত্রে মৃত্যুবরণ করলে ৩ লাখ টাকা, কর্মক্ষেত্রের বাইরে মৃত্যুবরণ করলে ২ লাখ টাকা, আহত হলে বা দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হলে ১ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। এ ছাড়া কোনো শ্রমিক মৃত্যুবরণ করলে বিমাবাবদ ২ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা পাবে।

সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব মিকাইল শিপার, যুগ্ম সচিব মো. আমিনুল ইসলাম বিজিএমইএ এর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, বিকেএমইএ এর সহসভাপতি এ এইচ আসলাম সানী, মনসুর আহমেদ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, শ্রমিক নেতা বদরুদ্দোজা নিজাম এবং সিরাজুল ইসলাম রনি উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like