১২৫টি নাম পেয়েছে সার্চ কমিটি,যাচাই শেষ ২০ জন তালিকায়

নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের লক্ষ্যে ২৭টি রাজনৈতিক দলের দেয়া ১২৫টি নাম থেকে ২০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা করেছে সার্চ। তবে রাজনৈতিক দলগুলো দেয়া নাম ও সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে না।

আজ (মঙ্গলবার) বিকেলে সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে রাজনৈতিক দলগুলোর দেয়া নাম যাচাই-বাছাই করে প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আবদুল হামিদের করা সার্চ কমিটির সদস্যরা। পর্যালোচনা শেষে ২০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা করার কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। সৎ, যোগ্য ও নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের নিয়েই সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হয়েছে। দলগুলোর দেয়া নামে সামঞ্জস্য রয়েছে। তবে তা প্রকাশ করা হবে না। কমিটির সদস্যরা আবারও বসবেন। তারাও ইসি’র জন্য নাম যুক্ত করবেন।

এর আগে ৩১টি রাজনৈতিক দলকে সার্চ কমিটির দেয়া চিঠির প্রেক্ষিতে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে নামের তালিকা দিয়েছে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ ২৫টি দল। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) চিঠি দিয়ে নাম না দেয়ার কারণ তুলে ধরে। আর নাম জমা না দেয়া চারটি দল হলো, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ, বিকল্প ধারা বাংলাদেশ, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস এবং গণফোরাম।

মঙ্গলবার বিকেল চারটার দিকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে নামগুলো ছয় সদস্যের অনুসন্ধান কমিটির কাছে দেয়া হয়। কমিটির সদস্যরা এই নামগুলো যাচাই-বাছাই করতে সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে বৈঠক করেন।

আজ (মঙ্গলবার) বেলা ১টায় দলের পক্ষ থেকে নামের তালিকা জমা দেন আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সোমবার রাতে গণভবনে দলের যৌথসভায় চূড়ান্ত হওয়া নামগুলো দলের সাধারণ সম্পাদকের মাধ্যমে খামে ঢুকিয়ে মুখ বন্ধ করে দেয়া হয়। আমি সেই খামটি জমা দিয়েছি। ব্যক্তির ব্যাকগ্রাউন্ড, যোগ্যতা, সততা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে নাম বাছাইয়ের ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। চূড়ান্ত তালিকায় কোনও নারীর নাম আছে কিনা তা জানাতে পারেননি আব্দুস সোবহান গোলাপ।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে নাম জমা দেয়ার পর, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, হাই কমান্ড আমার কাছে মুখবন্ধ খাম দিয়েছেন। তাই এর ভেতরে কী আছে আমি জানি না। শুধু এটুকু বলতে পারি বিএনপি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের যে ১৩ দফা দাবি করেছিল, নামগুলোতে তার প্রতিফলন আছে। বেলা ১২টা ৪০ মিনিটে নামের তালিকা জমা দেয় দলটি।

গত ২৫ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আবদুল হামিদ নির্বাচন কমিশন (ইসি) পুনর্গঠনের লক্ষ্যে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করেন। এই কমিটিকে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য নাম প্রস্তাব করতে বলা হয়। কমিটির সুপারিশ থেকে অনধিক পাঁচ সদস্য’র ইসি নিয়োগ দেবেন প্রেসিডেন্ট। এরই প্রেক্ষিতে প্রেসিডেন্টর সঙ্গে সংলাপে অংশ নেয়া ৩১টি রাজনৈতিক দলকে নাম দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দেয় নির্বাচন কমিশন গঠন সংক্রান্ত সার্চ কমিটি।

You Might Also Like