ডিস্কো গ্রুপের কিশোররা আত্মগোপনে

রাজধানীর উত্তরায় কিশোর আদনান কবির খুনের পর আত্মগোপনে চলে গেছে ডিস্কো গ্রুপের (ডিস্কো বয়েজ উত্তরা) সদস্যরা। তবে তাদের নাম-ঠিকানা পাওয়া গেছে। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে বলে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

গত ৬ জানুয়ারি উত্তরায় দুটি গ্রুপের দ্বন্দ্বে খুন হয় মাইলস্টোন স্কুলের ছাত্র আদনান কবির।

আদনান কবির হত্যা মামলা তদন্ত করছেন উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি (তদন্ত) মো. আব্দুর রাজ্জাক। রোববার সন্ধ্যায় তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ঘটনাটি যে দুটি গ্রুপের দ্বন্দ্বে ঘটেছে তা নিশ্চিত হওয়া গেছে। এটি ডিস্কো গ্রুপের ছেলেরা করেছে। ঘটনার পর তারা আত্মগোপনে চলে গেছে। সম্ভাব্য স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা যায়নি। যারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত, তাদের নাম-ঠিকানা পাওয়া গেছে। তাদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশ কাজ করছে।

উত্তরার স্থানীয় বাসিন্দা এবং কয়েকজন দোকানদার এ প্রতিবেদককে জানান, দুই বছর আগে উত্তরায় কয়েকজন কিশোর-তরুণ মিলে একটি গ্রুপ তৈরি করে। এরা একসঙ্গে আড্ডা দিত ও আনন্দ-ফুর্তি করত। বছরখানেক আগে নিজেদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দেয়। দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যায় গ্রুপটি। এরপর ছোটন এবং সাদাফসহ কয়েকজন মিলে গড়ে তোলে ডিস্কো গ্রুপ। নিহত আদনান কবির নাইন স্টার গ্রুপের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল। অবশ্য বিভিন্ন সময় গ্রুপের নাম পরিবর্তন করে কিশোররা। এরা সবাই সম্ভ্রান্ত পরিবারের ছেলে।

উত্তরার ১২ নম্বর সেক্টরের ৫ নম্বর রোডে নিহত আদনান কবিরের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, তার পরিবারের শোক এখনো কাটেনি।

আদনানের বাবা কবির হোসেন বলেন, ‘কোন গ্রুপ কী করেছে তা জানতে চাই না। আমার ছেলেকে যারা খুন করেছে তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। সে এমন কোনো অপরাধ করেনি যে তাকে মেরে ফেলতে হবে।’

উল্লেখ্য, ৬ জানুয়ারি শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উত্তরা ১৩ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর রোডের লুবানা হাসপাতালের অদূরে আদনান কবিরকে হত্যা করে প্রতিপক্ষ গ্রুপের সদস্যরা।

নিহতের বাবা এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় পুলিশ তিন কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে।

You Might Also Like