৪০ বছর পর ফিরলেন মৃত মা!

অলৌকিকভাবে বেঁচে ফেরার বাস্তবতা নতুন নয়। কিন্তু এবার এক মা তার মৃত্যুর ৪০ বছর পর সন্তানদের কাছে ফিরে এলেন!

অবাক, বিস্ময়- যা-ই বলি না কেন, ঘটনাটি বাস্তব। মৃত ভেবে অনেক বছর আগে যে মাকে গঙ্গায় ভাসিয়ে দিয়েছিলেন তার সন্তানরা, শুক্রবার তিনি ফিরে এলেন জীবিত।

৪০ বছর আগের কথা। ১৯৭৬ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশের কানপুরের এনায়েতপুর গ্রামে সাপের কামড়ে মারা যান এক নারী। শেষকৃত্য সম্পন্ন করে পরিবার তার মরদেহ ভাসিয়ে দেয় গঙ্গায়।

শুক্রবার নিজ বাড়িতে ফিরে তার বেঁচে থাকার গল্প শোনালেন ৮২ বছর বয়সি বিলাসা। তিনি জানালেন, সাপের কামড়ে তিনি মারা যাননি। অচেতন হয়ে গিয়েছিলেন। মৃত ভেবে গঙ্গায় ভাসিয়ে দেওয়ার পর একদল মাঝি তাকে উদ্ধার করে বিধনো গ্রামের মন্দিরে রেখে আসেন। সেখানেই তিনি সুস্থ হয়ে ওঠেন।

গরুর খাবার সংগ্রহের জন্য মাঠে গিয়েছিলেন বিলাসা। সেখানে কালো কোবরা কামড়ায় তাকে। দ্রুত বাড়ি ফিরে আসার পর তাকে পাশের গ্রামের ওঝার কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু ঝাড়ফুঁক শেষে ওঝা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘোষণা ছিল ভুল। প্রকৃতপক্ষে তিনি মারা যাননি। এতটাই অচেতন ছিলেন যে, ওঝা ও গ্রামবাসী বিভ্রান্ত হয়ে তাকে মৃত মনে করে গঙ্গায় ভাসিয়ে দেন। উত্তর প্রদেশের কানপুর-কানাউজ জেলার সীমান্ত থেকে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে।

বিলাসার দুই মেয়ে রাম কুমারী ও মুন্নি। ৪০ বছর মাকে দেখেননি তারা। শুক্রবার হঠাৎ করে তাদের সেই বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেন মা বিলাসাকে। প্রথমে তারা বিশ্বাস করতে পারেননি। কিন্তু তাদের চোখ যাকে দেখছে, তিনি তো তাদেরই মা! দেখা গেল মায়ের সঙ্গে মেয়েদের পুনর্মিলনের এক নাটকীয় মুহূর্ত।

বিলাসার মেয়ে রাম কুমারী জানালেন তার মায়ের ফিরে আসার গল্প। তার ভাষায়, ‘আমাদের মা সংজ্ঞা হারিয়েছিলেন এবং তিনি তার অতীত ভুলে গিয়েছিলেন। কয়েক দিন আগে পুরোনো স্মৃতি মনে পড়ে তার। বিষয়টি এক মেয়েকে খুলে বলেন বিলাসা। ওই মেয়ে তার চাচাকে জানায়। বিলাসার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মেয়েটির চাচা তার ঠিকানা খুঁজে বের করেন এবং ঘটনার সত্যতা খুঁজে পান। এরপর শুক্রবার বিলাসা তার বাড়িতে ফিরে আসেন।

You Might Also Like