চীন-মার্কিন সম্পর্ক উদ্বেগজনক পর্যায়ে: মার্কিন বিশ্লেষক

দক্ষিণ চীন সাগরে মার্কিন সমুদ্রড্রোন আটকের ঘটনা চায়ের কাপে ঝড় তোলার মতো হলেও বিষয়টি বলে দিচ্ছে চীন এবং আমেরিকার মধ্যকার সম্পর্ক আশংকাজনক পর্যায়ে রয়েছে। দু দেশের সম্পর্ক এখন এতটাই নাজুক যে, ছোটখাটো যেকোনো ঘটনা দেশ দুটির মধ্যে বড় ধরনের সংঘাত ডেকে আনতে পারে।

ইরানের প্রেস টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন আমেরিকার রাজনৈতিক ও আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক ডেনিস এটলার। দক্ষিণ চীন সাগর থেকে বৃহস্পতিবার চীনা নৌবাহিনী আমেরিকার একটি সমুদ্রড্রোন আটক করার পর দু দেশের মধ্যকার উত্তেজনা প্রসঙ্গে তিনি এ মন্তব্য করেন। গতকাল চীন বলেছে, বিষয়টি নিয়ে আমেরিকা বেশি বাড়াবাড়ি করছে।

অধ্যাপক এটলার প্রেস টিভিকে বলেন, “সমুদ্রড্রোন সম্পর্কে আমেরিকা দাবি করছে যে, দেড় লাখ ডলার মূল্যের এ ড্রোন সমুদ্রের পানির লবণাক্ততা ও সমুদ্রের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা এবং সমুদ্রের নিচের চ্যানেলের ম্যাপ তৈরির কাজে মোতায়েন করা হয়েছিল। কিন্তু মার্কিন নৌবাহিনী যা বলছে তার বাইরে ড্রোনটির প্রকৃত ক্ষমতা আরো অনেক বেশি হবে।” মার্কিন এ বিশ্লেষক বলেন- চীন বলছে, সমুদ্রে নৌ চলাচলের নিরাপত্তা বিবেচনা করে পূর্বসতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে এ ড্রোন আটক করা হয়েছে কিন্তু মার্কিন রাজনীতিবিদরা বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা না করে দু দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ানোর সব ব্যবস্থা পাকাপোক্ত করেছেন। এছাড়া, ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজে চীনকে ড্রোন চুরির জন্য অভিযুক্ত করেছেন। এ থেকে পরিষ্কার বার্তা পাওয়া যাচ্ছে যে, ট্রাম্পের শাসনামলে চীনের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্কে কতটা টানাপড়েন থাকবে। একে মার্কিন রাজনৈতিক ব্যবস্থার ব্যাধি বলে মন্তব্য করেন অধ্যাপক এটলার। তিনি বলেন, এ ধরনের ঘটনা সঠিকভাবে মোকাবেলা করা না গেলে তা মারাত্মক পরিণতি ডেকে আনতে পারে।

You Might Also Like