দুটির বেশি সন্তান থাকলে সরকারি চাকরি হবে না

ভারতের অসমের শিক্ষামন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা আরএসএসের বাহবা পেতে মুসলমানদের টার্গেট করছেন বলে অভিযোগ করেছেন এআইইউডিএফ নেতা ও সাবেক বিধায়ক আব্দুর রহিম খান। বিজেপি শাসিত অসমের শিক্ষামন্ত্রীর বিরুদ্ধে আব্দুর রহিম খানের অভিযোগ, আরএসএসের বাহবা পেতে হিমন্তবিশ্ব শর্মা মুসলমানদের বিরুদ্ধে মুখে যা আসছে তা ই বলে যাচ্ছেন। জুমার দিনে মাদ্রাসা খোলা রাখার সিদ্ধান্তেরও তীব্র সমালোচনা করেছেন তিনি।

শনিবার আব্দুর রহিম খান গণমাধ্যমকে বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে শুক্রবার মাদ্রাসা বন্ধ থেকে আসছে।এর বিরোধিতা করে মুসলমান সম্প্রদায়ের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দিয়েছেন হিমন্তবিশ্ব শর্মা।

তার দাবি, শুক্রবার মাদ্রাসা বন্ধ থাকলে যদি পড়াশোনার ক্ষতি না হয় তাহলে এ নিয়ে হিমন্তের মাথাব্যাথা কেন?’ জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আইন এনে হিমন্তবিশ্ব শর্মা ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের টার্গেট করছেন বলেও আব্দুর রহিম খান অভিযোগ করেন।

অসমে প্রস্তাবিত নতুন জনসংখ্যা নীতিতে বলা হয়েছে দুইয়ের বেশি সন্তান থাকা ব্যক্তিরা সরকারি চাকরির আবেদন করতে পারবেন না। পঞ্চায়েত নির্বাচনেও তারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না। এ ছাড়া বিভিন্ন সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত হবে ওই পরিবার। চাকরিরত অবস্থায় তৃতীয় সন্তানের জন্ম হলে চাকরি যেতে পারে বা অন্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হতে পারে বলে প্রস্তাবিত খসড়া নীতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিধানসভার শীতকালীন অধিবেশনে এ সংক্রান্ত বিল আনতে চলেছে রাজ্যের বিজেপি-মিত্রজোট সরকার।

শনিবার এআইইউডিএফ নেতা আমিনুল ইসলাম এবং হাফিজ বসির আহমেদ কাশেমি গণমাধ্যমে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে এ ধরণের আইন প্রণয়ন করে সরকার সাধারণ মানুষের মৌলিক অধিকারে আঘাত হানতে চাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন। বিধানসভায় এ সংক্রান্ত বিল আনা হলে তারা বিরোধিতা করবেন বলেও হাফিজ বসির আহমেদ কাশেমি জানিয়েছেন।#

পার্সটুডে

You Might Also Like