ধুলা থেকে সোনা!

যদি কলকাতার বড় বাজার কিংবা বউ বাজার যাবার সৌভাগ্য হয়। এক আজব ঘটনা দেখতে পাবেন।

ভোর হতে না হতেই সেখানকার মানুষকে হাতে একটা ঠোঙা নিয়ে ধুলা কুড়াতে দেখা যাবে। বাচ্চা থেকে বুড়া সবাই থাকে এই দলে। অবাক ব্যাপার না? আরো বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, এই ধুলা প্রক্রিয়াজাতের মাধ্যমে সোনা হয়ে যায়।

খুলেই বলি ব্যাপারটা, শিয়ালদহের বউ বাজার অথবা কলকাতার বড়বাজার এলাকাটা সোনা পট্টি হিসেবেই পরিচিত। এখানে শুধু যে বড় বড় সোনার দোকান আছে, তা নয়। গয়নার কারখানাও আছে। প্রতিদিন কাজের ফাঁকে সোনার অনেক গুড়ো তৈরি হয়। কিছু সোনার গুড়া উড়েও যায়। সেসব ধুলার সঙ্গে মিশে যায়। এসব ধুলাবালিই কুড়ায় বস্তির শিশু থেকে বৃদ্ধরা। দোকানপাট খোলার আগে এরা ভিড় জমাতে থাকে। যে আগে যাবে সে অনেক বেশি ধুলা কুড়াতে পারবে। আর সে তত বেশি লাভ করতে পারবে।

কুড়ানো ধুলা এসিডের মাধ্যমে প্রক্রিয়াজাত করা হয়। এসিডের সঙ্গে বিক্রিয়ায় সহজেই সোনার গুড়া সনাক্ত করা সম্ভব হয়। এসব কনা সোনার দোকানিরা অল্প দামে কিনে নেন।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, এই ধুলা কুড়িয়েই এখানকার শতাধিক পরিবার জীবিকা নির্বাহ করে।

You Might Also Like