নীলফামারীতে হত্যা মামলায় ৭ জনের ফাঁসি

নীলফামারীতে আব্দুর জব্বার হত্যা মামলায় ৭ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালত। পাশাপাশি দুই জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুরে নীলফামারীর অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক রেজা মোহাম্মদ আলমগীর হাসান এ সাজা দেন। তবে সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা সবাই পলাতক রয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কিশোরগঞ্জ উপজেলা নিতাই ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মৃত. ঘাউয়া মামুদের ছেলে রফিকুল ইসলাম ঢেরাই, একই গ্রামের আমিন উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ তুলাব, একই উপজেলার উত্তর কুঠিপাড়ার মজিবর রহমানের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক, সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর গ্রামের জবান আলীর ছেলে আতাহার আলী, জলঢাকা উপজেলার দক্ষিণ কাজিরহাট পুর্বপাড়া গ্রামের মৃত. ওমর আলীর ছেলে মহসীন আলী, রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলার খেচুনীকুণ্ডা আলমবিদিতর গ্রামের মৃত. মাহাতাব উদ্দিনের ছেলে মহুবার ডাকাত ও রংপুর সদর উপজেলার হাজীর হাট দোলাপাড়ার সহিদার রহমানের ছেলে মিন্টু মিয়া ওরফে শাহীন।

এছাড়া সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুটপুর গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম ওরফে মামুন ও তার ভাই অফিসার রহমানকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, জমিজমা নিয়ে বিরোধ ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২০০৮ সালের ২৭ জুলাই রাতে আসামিরা কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের আব্দুল জব্বারকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পাশ্ববর্তী নয়নখালে ডেকে নিয়ে চোখ, হাত-পা বেঁধে হত্যা করে।

এঘটনায় আব্দুল জব্বারের ছেলে আব্দুস সালাম ২৮ জুলাই কিশোরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৬।

মামলার অপর দুই আসামি কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মৃত. কমর উদ্দিনের ছেলে এবং সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধৃপুর গ্রামের জবান আলীর ছেলে জুলফিকার আলী ভুট্টুর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় তাদের মামলা থেকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়।

You Might Also Like