হরিয়ানায় বিয়ের আসরে হিন্দু মহাসভা নেত্রীর গুলিতে নিহত ১

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে এক বিয়ের আসরে অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার নেত্রীর গুলিতে একজন নিহত এবং চারজন আহত হয়েছে। অভিযুক্ত হিন্দু মহাসভা নেত্রী সাধ্বী দেবা ঠাকুর এবং তার ৬/৭ বন্দুকধারী দেহরক্ষীদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে পুলিশ তাদের খোঁজে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে।

আজ (বুধবার) গণমাধ্যমে প্রকাশ, মঙ্গলবার বিকেলে হরিয়ানার এক বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন হিন্দু মহাসভার ভাইস-প্রেসিডেন্ট স্বঘোষিত আধ্যাত্মিক গুরু সাধ্বী দেবা ঠাকুর। এ সময় সাধ্বী এবং তার দেহরক্ষীদের গুলিতে এক নারী নিহত হন এবং অন্য ৪ জন আহত হয়েছেন।

গণমাধ্যমে প্রকাশ, সাধ্বী ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে আশীর্বাদ দিতে পৌঁছে তিনি ও তার বন্দুকধারী দেহরক্ষীরা গুলি চালিয়ে এক নারীকে হত্যা করেন। তরুণী ওই সাধ্বী ডিজেতে গান চলাকালীন নাচতে নাচতে আনন্দে শূন্যে গুলি ছোঁড়া শুরু করেন। তার সঙ্গে থাকা সশস্ত্র সঙ্গীরাও গুলি ছুঁড়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। এ সময় আচমকা একটি গুলি লাগে বরযাত্রীর সঙ্গে আসা পাত্রের খালা সুনীতার (৫০) দেহে। তাকে হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি মারা যান।

ছররায় আহত অমরজিত, বিনোদ, অনিল এবং মনস্বী (১১)কে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গুলি চলার সময় এক নারী গুলিবিদ্ধ হলে মানুষজন আতঙ্কে যখন ছোটাছুটি করছে সেসময় অভিযুক্ত সাধ্বী দেবা ঠাকুর এবং তার সঙ্গীরা ঘটনাস্থল থেকে বন্দুকসহ দ্রুত পালিয়ে যান। এ নিয়ে উপস্থিত মানুষজন সাধ্বী দেবা ঠাকুরের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়েন। ওই ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছে।#

পার্সটুডে

You Might Also Like