কাগজপত্রে মালিক না হওয়ায় রানাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে : দুদক কমিশনার

কাগজপত্রে রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানা না হওয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাকে বাদ দেওয়ায় আইনজ্ঞ ড. কামাল হোসেন যে মন্তব্য করেছেন তা ঠিক নয়। রোববার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে দুদক কমিশনার মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, দুদক ইমোশন বা পারসেপশনের ওপর কাউকে আসামি করে না। দালিলিকভাবে যার বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া যায় তার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এক্ষেত্রে ড. কামাল হোসেন দুদকের এ মামলার সমালোচনা করে যে মন্তব্য করেছেন তা সঠিক নয়।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার দুদকের এ মামলা অনুমোদনের পর আইনজ্ঞ ড. কামাল হোসেন বলেছেন, সোহেল রানাকে বাদ দিয়ে মামলা করা হলে সবার মনে প্রশ্ন আসবে, তদন্তকাজ সঠিকভাবে হয়নি৷ এক্ষেত্রে আরো কার্যকর ও বিস্তারিত পদ্ধতিতে তদন্ত করে নিশ্চিতভাবে পর্দার ওপারের দোষীদের আইনের আওতায় আনতে হবে৷

ড. কামালের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে দুদক কমিশনার বলেন, আমাদের এজাহার যদি আপনি (ড. কামাল হোসেন) এসে দেখতেন তাহলে এমন মন্তব্য করতেন না। আপনার মন্তব্য করার অধিকার আছে। মামলা হচ্ছে দুদকের প্রথম পর্যায়। মামলার পরই শুরু হয় তদন্ত। তদন্তের পর আপনি কথা বলুন। আমাদের তদন্ত প্রতিবেদন দেখুন।

অনানুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে দুদক কমিশনার আরো বলেন, কাগজে-কলমে রানা প্লাজার মালিক ছিলেন সোহেল রানার বাবা-মা। ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে পৌরসভার অনুমোদন থেকে শুরু করে যাবতীয় কাগজপত্র তার বাবা-মায়ের নামে এবং তাতে তাদের স্বাক্ষর ছিলো। কাগজপত্রে রানার কোনো সংশ্লিষ্টতা খুঁজে পাওয়া যায়নি। এজন্য রানার বাবা-মা সহ প্রকৌশলী, আর্কিটেক্ট, পৌর মেয়রসহ যাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে তাদের আসামি করা হয়েছে।

তবে মামলার পর তদন্তে যদি রানার প্রভাব বিস্তারের নূন্যতম কোনো প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে তাকে বিন্দুমাত্রও ছাড় দেওয়া হবে না বলে তিনি জানান।

You Might Also Like