বায়ুদূষণে বাংলাদেশে প্রতি বছর সাড়ে ৮ হাজার শিশুর মৃত্যু হয়: ইউনিসেফ

ঘরের মধ্যে বায়ুদূষণে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে প্রতি বছর সাড়ে আট হাজার শিশুর মৃত্যু হয়। জাতিসংঘের শিশু তহবিলের (ইউনিসেফ) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

‘ক্লিয়ার দ্য এয়ার ফর চিলড্রেন’- শীর্ষক ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঘরের ভেতরে বায়ু দূষণের কারণে বাংলাদেশে শিশুর মৃত্যু ঝুঁকি বেশি। বায়ু দূষণের কারণে মস্তিষ্কের ক্রমবর্ধমান বৃদ্ধি পিছিয়ে যাওয়াসহ শারীরিক বিভিন্ন সমস্যার মধ্যে পতিত হতে পারে ওই শিশুরা।

আগামি ৭ নভেম্বর মরক্কোতে অনুষ্ঠেয় জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক বার্ষিক সম্মেলনকে সামনে রেখে সোমবার এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে ঘরের ভেতরের বায়ুদূষণের যে চিত্রও তুলে ধরা হয়, সেখানে দেখা যায়- কয়লা, কাঠ, গোবর ইত্যাদি জ্বালানি হিসেবে রান্নার কাজে ব্যবহারের কারণে সৃষ্ট ধোঁয়া ও তাপে ঘরের বায়ু দূষিত হয়। গ্রামাঞ্চলের স্বল্প আয়ের পরিবারের শিশুরাই এর সবচেয়ে বড় শিকার। এর ফলে বাংলাদেশে এত বিপুল সংখ্যক শিশুর মৃত্যু হয় বলে ইউনিসেফ-এর প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ অবস্থা থেকে মুক্ত হতে হলে বাংলাদেশে উন্নত ও ধোঁয়া মুক্ত চুলা ব্যবহার বাড়াতে সরকারকে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে বলে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

সমস্যার সমাধানে করণীয় হিসেবে প্রতিবেদনে পরামর্শ দেয়া হয়েছে; ২০৩০ সালের মধ্যে সারা দেশে তিন কোটিরও বেশি পরিবারকে উন্নত রান্না সরঞ্জাম সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে। আর তা হলেই শিশুকে অন্তত ঘরের ভেতরের বায়ুদূষণ থেকে মুক্ত রাখা সম্ভব হবে।

ইউনিসেফ-এর ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বর্তমানে বিশ্বে বায়ুদূষণের শিকার শিশুদের সংখ্যা ৩০ কোটি। ঘরের ভেতর এবং বাইরের বায়ুদূষণের ফলে বিশ্বে প্রতিবছর ছয় লাখেরও বেশি শিশুর মৃত্যু হয়, যাদের বয়স পাঁচ বছরেরও কম।#

পার্সটুডে

You Might Also Like