ব্রিটিশ-রাশিয়া সম্পর্কে উত্তেজনা বৃদ্ধি

রাশিয়া অভিযোগ করেছে, ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ রুশ কূটনীতিকদের জন্য ভিসা সরবরাহ করতে দেরি করায় দেশটির লন্ডনস্থ দূতাবাস ‘সঙ্কুচিত’ হয়ে আসছে। লন্ডন-মস্কো সম্পর্কে উত্তেজনা বেড়ে যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে ব্রিটেনে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ইয়াকোভেঙ্কো এ অভিযোগ করেছেন।

তিনি ব্রিটিশ নেতাদের সাম্প্রতিক রাশিয়া বিরোধী বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে বলেন, রাশিয়ার লন্ডন দূতাবাসের কর্মীদের ভিসা দিতে দেরি করছে ব্রিটিশ সরকার। রুশ রাষ্ট্রদূত বলেন, ভিসা জটিলতার কারণে মস্কো গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে নিজের দূতাবাসকে ছোট করে রাখতে বাধ্য হয়েছে। বেশ কয়েকজন কূটনীতিকের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর তার মস্কোয় ফিরে গেলেও তাদের স্থলাভিষিক্ত হিসেবে কেউ লন্ডনে ফিরতে পারেনি বলে তিনি অভিযোগ করেন।

২০১১ সাল থেকে লন্ডনে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত ইয়াকোভেঙ্কো বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, ব্রিটিশ সরকার দেশটিতে একটি উপযুক্ত রুশ কূটনৈতিক মিশন চায় কিনা তা নিয়ে তার যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। ভিসা ইস্যুতে লন্ডনের নীতি মস্কোর কাছে বোধগম্য নয় বলেও তিনি মন্তব্য করেন।
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনকে ‘মস্কো বিরোধী’ বক্তব্য দেয়ার জন্যও অভিযুক্ত করেন রুশ রাষ্ট্রদূত।

মে সম্প্রতিক রাশিয়ার সেনাবাহিনীকে সিরিয়ার আলেপ্পো শহরে ‘বিরক্তিকর নৃশংসতা’ চালানোর জন্য অভিযুক্ত করেন। এ ছাড়া, জনসন সিরিয়ায় রাশিয়ার চলমান অভিযানকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ বলে অভিহিত করেছেন।

ইউক্রেন ও সিরিয়ায় গত কয়েক বছর ধরে চলা সহিংসতার ব্যাপারে রাশিয়া ও ব্রিটেন বিপরীতমুখী অবস্থান নেয়ার কারণে দেশ দু’টির মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

You Might Also Like