পুতিনকে তিনি বলেছিলেন “আমরা সবাইকে বোমা মেরে হত্যা করব”

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে সৌদি আরবের সাবেক গোয়েন্দাপ্রধান বন্দর বিন সুলতান বলেছিলেন, “সিরিয়ার সরকারকে উৎখাতের পর আমরা সব সন্ত্রাসীকে সিরিয়ার মাটিতেই বোমা মেরে হত্যা করব।”

বৈঠকে পুতিন সৌদি গোয়েন্দাপ্রধানকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, “সিরিয়ার সরকারকে যদি সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা পতন ঘটাতে পারে তাহলে তারপরই তারা সৌদি আরবের দিকে যাবে- বিষয়টি কী সৌদি কর্মকর্তাদের জানা আছে?” জবাবে বন্দর বিন সুলতান বলেছিলেন, “বিষয়টি সম্পর্কে তারা সচেতন আছেন এবং সিরিয়ার আসাদ সরকারের পতন হলে তারা সঙ্গেসঙ্গেই সন্ত্রাসীদেরকে সিরিয়ার মাটিতে বোমা মেরে হত্যা করবেন যাতে সৌদি আরেবের দিকে তারা যেতে না পারে।”

ইরানের জাতীয় সংসদের স্পিকারের পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ান গতকাল লেবাননের একদল সাংবাদিকের সঙ্গে রাজধানী তেহরানে বৈঠকের সময় এ তথ্য জানান। পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে বন্দর বিন সুলতান আরো বলেছিলেন, সিরিয়ার সরকারকে মস্কো সমর্থন দেয়া বন্ধ করলে সৌদি আরবও চেচেন গেরিলাদেরকে সমর্থন দেয়া বন্ধ করবে। এছাড়া, তেল ও গ্যাস বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে কৌশলগত চুক্তি করবে।” তবে পুতিন বন্দর বিন সুলতানের এসব প্রস্তাবে রাজি হন নি বরং ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন। তিনি ওই বৈঠকের পর সিরিয়ার বাশার আল-আসাদকে আরো বেশি জোরালো সমর্থন দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। বৈঠকটি সম্ভবত ২০১৪ সালে হয়েছিল। বন্দর বিন সুলতানের বক্তব্যকে প্রেসিডেন্ট পুতিন অনেকটা মাফিয়া ডনের বক্তব্য হিসেবে গণ্য করেছিলেন।

গতকাল লেবাননের সাংবাদিকেদের সঙ্গে বৈঠকে আবদুল্লাহিয়ান আরো বলেছেন, “আমাদের কাছে বহু তথ্য-প্রমাণ রয়েছে যে, লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ইরানি দূতাবাসে যে বোমো হামলা হয়েছে তা সমন্বয়ের কাজ করেছেন বন্দর বিন সুলতান।

You Might Also Like